বর্ষ ১ - সংখ্যা ৪৯

সংবাদ শিরোনাম :
মার্চেই প্রাথমিকে ১৭ হাজার শিক্ষক নিয়োগ ::. গাজীপুরে অস্ত্র ও গুলিসহ ৬ ডাকাত আটক ::. গাজীপুর আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে আ.লীগ প্যানেল জয়ী ::. গাজীপুরের শ্রীপুরে সড়কে গর্ত ও ধুলায় জনদুর্ভোগ চরমে ::. গাজীপুরের ‘জাগ্রত চৌরঙ্গী’ এখন মূত্রত্যাগীদের পাবলিক টয়লেট !! ::. কালিয়াকৈরে কবরস্থানের জমিতে মার্কেট নির্মাণের অভিযোগ ! ::. উপমহাদেশের অন্যতম শ্রেষ্ঠ বিজ্ঞানী ড. মেঘনাদ সাহার স্মরণ সভা পালিত ::. শ্রী শ্রী মহানাম যজ্ঞানুষ্ঠান ও অষ্টকালীন লীলা কীর্তন অনুষ্ঠিত ::. মালয়েশিয়ায় জনশক্তি রপ্তানির দ্বার উন্মোচন ::. পুলিশি হামলা : দুঃশাসনের বহিঃপ্রকাশ : বিএনপি ::. বুড়িগঙ্গার সীমানা নির্ধারণ ও দখলদার উচ্ছেদের দাবি ::. রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফেরার অধিকার রয়েছে ::. সার্বভৌম সম্পদ তহবিল গঠন করতে যাচ্ছে সরকার ::. শ্রীপুরে খোলা জায়গায় পোল্ট্রি ফার্মের বর্জ্যে : দূষিত হচ্ছে পরিবেশ ::. কালিয়াকৈরে দুটি ঝুটের গুডাউনে অগ্নিকান্ড ::.
A+ A A-

একের পর এক ব্লগার হত্যায় সরকারের ষড়যন্ত্র রয়েছে

pic-25 254210ব্লগার নীলাদ্রি চট্টোপাধ্যায় নিলয় হত্যাকাণ্ডের নিন্দা জানিয়েছে বিএনপি। দলের পক্ষে গতকাল শনিবার সংবাদ সম্মেলনে আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, 'আমরা কোনো হত্যাকাণ্ডকে সমর্থন করি না। তিনি ব্লগার নিলয় হোন, রাজনৈতিক কর্মী হোন। আমরা সমস্ত খুন-গুম-হত্যাকাণ্ডের নিন্দা জানাই। দেশে বিচারহীনতার পরিস্থিতি বিরাজ করায় ব্লগার মারা যাচ্ছেন, নারকীয় উপায়ে শিশু হত্যা হচ্ছে, মায়ের গর্ভে শিশু গুলিবিদ্ধ হচ্ছে।' এদিকে একের পর এক ব্লগার হত্যাকাণ্ডের পেছনে সরকারের ষড়যন্ত্র রয়েছে বলে দাবি করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন। গতকাল এক আলোচনা সভায় তিনি এ অভিযোগ করেন।

নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে গতকাল বিকেলে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ড. আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, 'সমাজ ও রাষ্ট্রের স্থিতিশীলতার জন্য কোনো ধর্মাবলম্বীর অনুভূতির প্রতি আঘাত দেওয়া উচিত নয়। কোনো লেখা বা কোনো বক্তব্য প্রকাশের ক্ষেত্রে আমাদের মনে রাখতে হবে যেন তা মানুষের ধর্মবোধে, ধর্মবিশ্বাসে অথবা রাজনৈতিক বিশ্বাসবোধে আঘাত না করে। আমরা ব্লগারদের স্বাধীনতায় বিশ্বাস করি। একইভাবে আমরা প্রত্যাশা করব, লেখার ক্ষেত্রে কোনো ধর্ম অবলম্বনকারী যেন আঘাতপ্রাপ্ত না হন।'

রিপন আরো বলেন, 'রাষ্ট্রে জবাবদিহিতা নেই, সুশাসন একেবারেই নেই। বিচারহীনতার সংস্কৃতি রন্ধ্রে রন্ধ্রে প্রবেশ করেছে। তাই প্রতিদিন সারা দেশে নারী ও শিশু ধর্ষণ এবং হত্যার ঘটনা ঘটেছে। জাতীয় যেসব সংকট সৃষ্টি হচ্ছে, তা নিরসনে সরকারকে এগিয়ে আসতে হবে। আমরা সরকারকে অভয় দিতে চাই, সহযোগিতা করতে চাই। নিয়মান্ত্রিক পদ্ধতিতে সব দলের অংশগ্রহণের একটি সুষুম নির্বাচন হোক। সেই নির্বাচনে জনগণকে অধিকার দেওয়া হোক, তারা কাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবে। আমরা সংলাপ ও আলোচনার আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া দেখতে চাই।'

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে রিপন বলেন, "সরকারের তরফ থেকে 'জঙ্গিবাদ আছে, জঙ্গিবাদ আছে' এমন জিকির তোলে। হঠাৎ করে জঙ্গির নামে কিছু লোকজন ধরে। কিন্তু এদের বিচার হচ্ছে, এটা আমরা দেখতে পাচ্ছি না। দেশে আইনের শাসন চলছে না। বিএনপি জঙ্গিবাদে বিশ্বাস করে না। জনগণের একটি নির্বাচিত সরকার থাকলেই কেবল শক্ত হাতে জঙ্গিবাদ দমন করা সম্ভব হবে বলে আমরা মনে করি।"

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার হায়দার আলী, গণশিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক সানাউল্লাহ মিয়া, সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট ফেরদৌস আখতার ওয়াহিদা, সেলিম রেজা হাবিব, কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম আজাদ, আবদুল লতিফ জনি, আসাদুল করীম শাহিন, খোরশেদ মিয়া আলম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সরকারের রাজনৈতিক চাল : একের পর এক ব্লগার হত্যাকাণ্ডের পেছনে সরকারের ষড়যন্ত্র রয়েছে বলে দাবি করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন। তিনি বলেছেন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সামনে যেভাবে হত্যাকাণ্ড হয়েছে, এর পেছনে একটা ষড়যন্ত্র রয়েছে। তারা সারা পৃথিবীকে দেখাতে চাচ্ছে বাংলাদেশে মৌলবাদীগোষ্ঠী আছে, তাদের নির্মূল করার জন্য এই সরকারের প্রয়োজন। গতকাল সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের অডিটরিয়ামে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

যুব জাগপা আয়োজিত 'স্বাধীনতা ও গণতন্ত্র রক্ষায় যুবসমাজের করণীয়' শীর্ষক আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি আলহাজ ফাইজুর রহমান। এতে জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান, কেন্দ্রীয় নেতা আসাদুর রহমান খান আসাদ, যুব জাগপার সভাপতি মো. ফাইজুর রহমান প্রমুখ বক্তব্য দেন।

অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, 'বর্তমান সরকারের স্লোগান হলো- বাংলাদেশ সন্ত্রাসী দেশ। আজ নিলয় হত্যার মধ্য দিয়ে তারা সারা পৃথিবীকে দেখাতে চাচ্ছে, বাংলাদেশ মৌলবাদীর দেশ হয়ে গেছে। সন্ত্রাস, জঙ্গি সংগঠন ও মৌলবাদীমুক্ত করার জন্য তারাই একমাত্র হাতিয়ার, আসুন আমাকে সাহায্য করুন। এটি একটি রাজনৈতিক চাল। ব্লগার নিলয়কে এর অংশ হিসেবে হত্যা করা হয়েছে। এ ধরনের হত্যাকাণ্ড একের পর এক হচ্ছে, আজও একটি হত্যাকাণ্ডের বিচারও হলো না, কারণ উদ্ঘাটনও হলো না। এর অর্থ, এই সরকার হত্যাকারীদের মদদ দিচ্ছে।'

খন্দকার মাহবুব বলেন, এখন বাংলাদেশে মৌলবাদী ও জঙ্গিবাদের সমস্যা নয়, সমস্যা একটি রাজনৈতিক সমস্যা, নির্বাচনের সমস্যা। সরকারের পায়ের নিচে মাটি নেই, যেকোনো মুহূর্তে গণজাগরণে তাদের পতন ঘটবে। তাই তারা জঙ্গিবাদ ও মৌলবাদের ধুয়া তুলছে।

এদিকে সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত এক মানববন্ধনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান বলেন, দেশের বর্তমান রাজনৈতিক সংকট থেকে উত্তরণের জন্য সর্বদলীয় গোলটেবিল আলোচনার মাধ্যমে এর সমাধান হতে পারে। সরকারি দলের একজন নেতা স্বীকার করেছেন, বর্তমানে রক্ষকরাই ভক্ষকের ভূমিকায় অবতীর্ণ। ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরাই বর্তমানে সংখ্যালঘুদের জমি দখল করছে।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান বলেন, সমাজে নৃশংসতা ভয়াবহভাবে বেড়ে চলায় জাতি আজ আতঙ্কিত ও শঙ্কিত। দেশে বিচারহীন সংস্কৃতি চালু হওয়ায় এই অবস্থা।

মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন মহিলা দলের সভাপতি নূরে আরা সাফা, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানা, ঢাকা মহানগর মহিলা দলের সভাপতি সুলতানা মাহমুদ, কেন্দ্রীয় নেত্রী ফরিদা ইয়াসমিন, রহিমা শিকদার, হাবিব চৌধুরী বিথী, মিলি জাকারিয়া, তাহমিনা শাহীন প্রমুখ।

ওদিকে মাগুরার গুলিবিদ্ধ শিশু সুরাইয়া ও তার মা নাজমাকে দেখতে গতকাল ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে যান বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য লে. জে. (অব.) মাহবুবুর রহমান। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, যারা শিশু নির্যাতন করছে তারা কোনো দলের নয়, তারা সন্ত্রাসী। দেশের মানুষ তাদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে। দেশে আইনের শাসন না থাকার কারণে আশঙ্কাজনক হারে শিশু হত্যা ও নির্যাতন বৃদ্ধি পেয়েছে।