পুলিশের কান্ড জেলে থেকেও বিস্ফোরক মামলার আসামী

0
12
Print Friendly, PDF & Email

গ্রেফতার হওয়া দু’ছাত্রদল নেতা জেল হাজতে থাকলেও তাদের নামে বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে পুলিশ বাদী হয়ে শ্রীপুর মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছে। পুলিশের কান্ড দেখে হতবাক হয়েছে তাদের পরিবার। মামলা ও গ্রেফতারকৃতদের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, ছাত্রদল নেতা মোজাম্মেল হক ও রাসেল সরকার পৃথক দু’ মামলায় গ্রেফতার হয়ে জেল হাজতে আছে। ৪ ডিসম্বের বেলা পৌনে ১ টায় শ্রীপুর গোসিংগা সড়কে রেলগেইট এলাকায় ছাত্রদলকর্মীরা যানবাহন ভাংচুর ও ককটেল বিস্ফোরনের ঘটনায় শ্রীপুর মডেল থানার এস আই মাহাবুল ইসলাম বাদী হয়ে বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে মামলা নং- ৯(১২)২০১৩ দায়ের করেন। মামলায় ৫০ ছাত্রদল নেতাকর্মী সহ ৩০/৪০ জনকে আসামী করা হয়। মামলার ৩নং আসামী মোজাম্মেল হক (৩৫), ৪নং আসামী রাসেল সরকার (২৮) দীর্ঘ দিন যাবৎ গ্রেফতার হয়ে জেল হাজতে থাকলেও মামলায় তাদেরকে আসামী করায় হতবাক হয়েছে তাদের পরিবার। শ্রীপুর উপজেলা পোষ্ট অফিসের পেকার ম্যান আ: খালেক জানায়, তার পুত্র মোজাম্মেল হক শ্রীপুর কলেজ শাখা ছাত্রদলের অর্থ বিষয়ক সম্পাদক। ২৫ অক্টোবর বেলা সাড়ে ৩ টায় শ্রীপুর পৌর শহরে ভাংচুর ও ককটেল বিস্ফোরনের অভিযোগে এই আই রুকন ইসলাম বাদী হয়ে ৬০ বিএনপি নেতাকর্মী সহ অজ্ঞাত ১০০/১৫০ জনের নামে বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে মামলা নং- ৩৭(১০)১৩ দায়ের করেন। ওই মামলার ৩নং আসামী মোজাম্মেল হক ঘটনার দু’দিন পর পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করে। দু’বার জামিনের আবেদন করলেও তা নামঞ্জুর হয়। আ: খালেকের অভিযোগ তার পুত্র জেল হাজতে আটক থাকার পরও মামলার বাদী শ্রীপুর থানার এসআই মাহাবুল ইসলাম অতি উৎসাহিত হয়ে শ্রীপুর থানার বিস্ফোরক দ্রব্য আইনের মামলা নং- ৯(১২)১৩ তে তার পুত্রকে ৩নং আসামী হিসাবে অন-র্ভূক্ত করে তার বিরুদ্ধে ঘটনার দিন একাধিক ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ত্রাস সৃষ্টি করার অভিযোগ আনে। তিনি তার পুত্রকে মিথ্যে মামলায় জড়ানোর প্রতিবাদ জানান। একই ঘটনার শিকার হয় ছাত্রদল নেতা রাসেল সরকার। শ্রীপুর পৌর এলাকার লোহাগাছ গ্রামে প্রয়াত ইউপি মেম্বার হাবিজ উদ্দিনের পুত্র রাসেল । তার মা মতিয়া বেগম ও বড় বোন বিউটি জানায়, ২৫ নভেম্বর পুলিশ রাসেলকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরন করে। পরিবারের অস্বচ্ছলতার কারনে জামিন আবেদন করতে পারেননি। প্রায় ১৫দিন যাবৎ রাসেল জেল হাজতে আটক রয়েছে। জেলে থাকার পরও তাকে শ্রীপুর থানার বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে মামলা নং- ৯(১২)১৩ এর ৪নং আসামী হিসেবে অন-র্ভূক্ত করা হয়। তার অসহায় মাতা মতিয়া বেগমের অভিযোগ জেল হাজতে আটক রাসেলকে মিথ্যা মিথ্যি ভাবেই বিস্ফোরক দ্রব্য আইনের মামলায় জড়ানো হয়েছে। শ্রীপুর মডেল থানার এস.আই মাহবুল ইসলাম অতি উৎসাহিত হয়ে ওই ছাত্রদলের দু নেতাকে জেল হাজতে থাকার পরও বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে মামলায় জড়ানোর ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন স’ানীয় বিএনপি নেতৃবৃন্দ। এ ব্যাপারে মামলার বাদী এস.আই মাহবুল ইসলাম জানান, ওই দু’আসামী জেল হাজতে থাকার বিষয়ে তার জানা নেই। মামলার তদন-কারী কর্মকর্তা এসআই গোলাম কিবরীয়া জানান, ওই দুই ছাত্রদল নেতা জেল হাজতে আটক অবস’ায় মামলার আসামী করা হয়ে থাকলে তদন- পুর্বক আইনগত ব্যবস’া নেয়া হবে।

Facebook Comments