শ্রীপুরে প্রবাসীর স্ত্রীর অশ্লীল ভিডিও ধারণ করে ২ লাখ টাকা আদায় করায় থানায় মামলা

0
17
Print Friendly, PDF & Email

শ্রীপুরে প্রবাসীর স্ত্রীকে জুসের সাথে নেশা জাতীয় দ্রব্য সেবন করে ধর্ষনের পর ধর্ষকরা ভিডিও চিত্র ধারণ করে ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে ২ লাখ টাকা আদায় করেছে প্রভাবশালী আ: সাহিদ মিয়া। এ ঘটনায় শ্রীপুর থানায় মামলা হলেও ১৪ দিনে কাউকে গ্রেফতার করেনি পুলিশ। জানা গেছে, গত ২৩ নভেম্বর উপজেলার বরমী ইউনিয়নের বালিয়াপাড়া গ্রামের প্রবাসী মো: ইসলাম উদ্দিনের স্ত্রীকে একই এলাকার প্রভাবশালী আত্মীয় মৃত মোহাম্মদ আলী শেখের পুত্র আব্দুস সাহিদ ও তার সহযোগী মীর বক্সের পুত্র নুরু মিয়া, মৃত ছফির উদ্দিনের পুত্র রফিক কেনা কাটা করে দেয়ার কথা বলে সিএনজিতে উঠিয়ে বরমী বাজারে নেওয়ার কথা বলে জুসের সাথে নেশাজাতীয় দ্রব্যাদি মিশিয়ে অজ্ঞান করে একই ইউনিয়নের সাতখামাইর এলাকায় আ: সাহিদের বোনের বাড়ীতে নিয়ে জোরপুর্বক ধর্ষন করে। ধর্ষনের সময় ধর্ষকরা তার ভিডিও চিত্র ধারণ করে ওই ভিডিও চিত্র ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে ৩ লাখ টাকা দাবী করে। ধর্ষিতা নিজের মান সম্মান রক্ষায় ২ লাখ টাকা ধর্ষকদের দেয়ার পরও বাকী ১ লাখ টাকার জন্য ওই ভিডিও চিত্র ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয় বলে ধর্ষিতা জানান। পরে ধর্ষিতার স্বামী বিদেশ থেকে দেশে এসে স’ানীয় এক সিএনজি চালকের মোবাইলে তার স্ত্রীর অশ্লীল ভিডিও চিত্র দেখতে পায়। ঘটনা জানাজানি হলে প্রবাসীর স্ত্রী ধর্ষন ও টাকা দেয়ার কথা স্বীকার করে। পরে এলাকার লোকজনের সহযোগীতায় গত ২৩ নভেম্বর শ্রীপুর থানায় একটি মামলা করে। মামলা হওয়ার ১৪ দিন পার হয়ে গেলেও পুলিশ আসামীদের গ্রেফতার করেনি। বাদীর অভিযোগ, শ্রীপুর থানার এস.আই মাহবুবুল ইসলাম আসামীদের সাথে যোগসাজস থাকায় তাদের গ্রেফতার করেনি। এদিকে আসামী গ্রেফতার না হওয়ায় বাদীকে মামলা প্রত্যাহার করতে খুন জখমের হুমকি দিচ্ছে ধর্ষকরা

Facebook Comments