ককটেল হামলায় গণজাগরণ মঞ্চের সংগঠক ছাত্রমৈত্রীর সভাপতিসহ চারজন আহত

0
6
Print Friendly, PDF & Email

   রাজধানীর শাহবাগে আজিজ সুপার মার্কেটের সামনে ককটেল হামলায় গণজাগরণ মঞ্চের সংগঠক ও ছাত্র মৈত্রীর সভাপতি বাপ্পাদিত্য বসু আহত হয়েছেন।

   আজ শনিবার সন্ধ্যা সোয়া সাতটার দিকে ওই হামলায় আরও তিনজন আহত হন। তাঁদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হাসপাতালে চিকিত্সাধীন বাপ্পাদিত্য জানান, জামায়াত-শিবির ও পাকিস্তানি সমর্থনপুষ্ট ব্যক্তিরা পরিকল্পিতভাবে তাঁর ওপর এ হামলা চালিয়েছে। তিনি বলেন, পাকিস্তানি পণ্য বর্জনের প্রচারপত্র বিতরণ করে এলিফ্যান্ট রোড থেকে রিকশায় করে তিনি শাহবাগের উদ্দেশে রওনা হন। পথে আজিজ সুপার মার্কেটের সামনে রিকশা থামিয়ে ফুটপাত থেকে কেনাকাটা করছিলেন তিনি। এ সময় মোটরসাইকেলে কয়েকজন দুর্বৃত্ত তাঁকে লক্ষ্য করে দুটি ককটেল ছুড়ে মারে। এর মধ্যে একটি ককটেল রিকশার সামনে পড়লে চালক আসাদ মিয়া (৬০) আহত হন। অন্য একটি ককটেল বাপ্পার সামনে পড়লে তিনি পায়ে আঘাত পান। হামলায় দুই পথচারীও আহত হন। তাঁদের একজন ফুটপাতের দোকানি মাহবুব আলম (২৩)। অপরজন জামাল উদ্দিন (৩৭)। তাঁদের পা ঝলসে যায়। এ ছাড়া ককটেলের আঘাতে রিকশাচালকের পিঠ ও দুই পা ঝলসে গেছে।

   হাসপাতালে গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকার প্রথম আলো ডটকমকে বলেন, বাপ্পাদিত্য পাকিস্তানি পণ্য বর্জন কর্মসূচির লিফলেট বিভিন্নজনের মধ্যে বিতরণ করছিলেন। একপর্যায়ে তিনি রিকশায় করে শাহবাগে ফিরছিলেন।

ইমরান অভিযোগ করে বলেন, পাকিস্তানের দেশীয় ও আন্তর্জাতিক সমর্থকগোষ্ঠী গণজাগরণ মঞ্চের ওপর হামলা চালিয়েছে। সিলেটেও ওই চক্র আজ দুপুরে ককটেল হামলা চালিয়ে কয়েকজনকে আহত করে। এরই অংশ হিসেবে বাপ্পার ওপর হামলা চালানো হয়েছে। তিনি দাবি করেন, তিনি রিকশা নিয়ে ঢোকার সময় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের গেটেও ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায় ওই চক্র। তবে এতে তিনি হতাহত হননি।

Facebook Comments