থাইল্যান্ডে বিরোধী দলের নির্বাচন বর্জন

0
10
Print Friendly, PDF & Email

  থাইল্যান্ডের প্রধান বিরোধী দল ডেমোক্র্যাট পার্টি আজ শনিবার ঘোষণা দিয়েছে যে তারা আগামী ২ ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠেয় অন্তর্বর্তী নির্বাচনে অংশ নেবে না। এ ঘোষণায় দেশটিতে চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতির আরও অবনতি হলো। এ অবস্থায় থাই সেনাপ্রধান বলেছেন, দেশটিতে অচিরেই গৃহযুদ্ধ শুরু হতে পারে।

বিবিসি জানায়, ‘থাইল্যান্ডের রাজনীতি ব্যর্থতায় আটকে গেছে’ অভিযোগ করে ডেমোক্র্যাট পার্টির নেতা অভিজিত্ ভেজ্জাজিভা এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, তাঁর দলের কোনো প্রার্থী নির্বাচনে অংশ নেবে না। সরকার পতনের দাবিতে বিরোধীদের কয়েক সপ্তাহের বিক্ষোভের পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী ইংলাক সিনাওয়াত্রা এ মাসের শুরুতে নির্বাচন আহ্বান করেন।

থাইল্যান্ডে গৃহযুদ্ধের আশঙ্কা ব্যক্ত করে সেনাপ্রধান জেনারেল প্রাজুথ চান-ওচা সংকট নিরসনে নতুন প্রস্তাব দিয়েছেন। সরকারি ও বিরোধী দলের শীর্ষ নেতাদের বাইরে কিছু নেতাদের নিয়ে একটি গণপরিষদ গঠন করার পরামর্শ দিয়েছেন প্রাজুথ চান-ওচা।

রয়টার্স বলছে, এর আগে ডিসেম্বর মাসে বিরোধী দল প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবিতে পার্লামেন্ট থেকে পদত্যাগ করে।

থাইল্যান্ড ২০১০ সালের পর সবচেয়ে সংঘাতময় রাজনীতির সম্মুখীন হয়েছে। এ অবস্থায় প্রধানমন্ত্রী ইংলাক সিনওয়াত্রা ফেব্রুয়ারিতে নির্বাচন করতে রাজি হলেও, প্রধানমন্ত্রিত্ব ছাড়তে রাজে হননি।

এর আগে থাইল্যান্ডের যেকোনো রাজনৈতিক সমস্যায় সেনাবাহিনী হস্তক্ষেপ করেছে। তবে এবারের রাজনৈতিক সংঘাতে সেনাবাহিনী হস্তক্ষেপ করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে। যদিও জেনারেল প্রাজুথ আজ শনিবার বলেছেন, বর্তমান সংকট নিয়ে তিনি অত্যন্ত উদ্বিগ্ন। মতানৈক্যটি শুধু ব্যাংককে নয়, বরং পুরো দেশেই বিস্তৃত হয়েছে। এই অবস্থায় দেশ গৃহযুদ্ধের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।

Facebook Comments