শ্রীপুরে আ’লীগ নেতা ও একটি স্কুলের সভাপতির বিরুদ্ধে ছাত্রীদের সাথে অনৈতিক সম্পর্ক সৃষ্টিতে বাধ্য করার অভিযোগ

0
8
Print Friendly, PDF & Email

শ্রীপুর পৌর আ’লীগের জনৈক নেতা ও একটি স্কুলের সভাপতির বিরুদ্ধে ছাত্রীদের সাথে অনৈতিক সম্পর্ক সৃষ্টিতে বাধ্য করা, সাহায্য চাইতে আসা নারীদের শ্লীলতাহানি করার অভিযোগ উঠেছে। শ্রীপুরের সর্বত্র ওই নেতার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের ভিডিও ফুটেজ নিয়ে তুলকালাম কান্ড। অবশেষে ৬ লাখ টাকার বিনিময়ে নিজের কেলেংকারী ঢাকার অপচেষ্টা। শ্রীপুর থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার গোসিংগা ইউনিয়নাধীন পটকা গ্রামের দু’কৃষকের পুত্র মনির হোসেন (২০)  ও আজিজুল ইসলামের (২২) নিকট থেকে আ’লীগ নেতার সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের পাশে বিদ্যালয় মার্কেটে পজিশন নেওয়ার জন্য মোটা টাকার উৎকোঁচ গ্রহন করে। এতে দুষ্ট বুদ্ধি সম্পন্ন মনির হোসেন ও আজিজুল ইসলাম তাদের কাছ থেকে নেয়া টাকা উদ্ধারের জন্য প্রতারনার আশ্রয়ে ওই নেতার বাড়ীতে প্রবেশ করে ডিজিটাল পদ্ধতিতে বেডরুমের ভিতর গোপন সিসি ক্যামেরা স্থাপন করে। এতে ধরা পড়ে ওই নেতার অনৈতিক কর্মকান্ডসহ বিভিন্ন কার্যকলাপ। এক পর্যায়ে ওই আ’লীগ নেতাকে তার কর্মকান্ডের একটি ভিডিও সিডি তার বাড়ীতে পাঠায় এবং মোবাইলের মাধ্যমে তাদের টাকা ফেরত না দিলে ভিডিও ফুটেজ ইন্টারনেটের মাধ্যমে জন সম্মুখে প্রকাশ করার হুমকি দেয়। এতে আ’লীগ নেতা দু’যুবকের কথা অনুযায়ী ৮ লাখ টাকা দিতে সম্মত হয়ে ৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা পরিশোধ করে। এক পর্যায়ে আ’লীগ নেতা শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আমির হোসেনের স্মরণাপন্ন হলে তিনি আইনী ব্যবস্থায় কললিস্ট ধরে ওই যুবকদের গ্রেফতার করে বেধড়ক মারপিট করলে থলের বিড়াল বেড়িয়ে আসে। বিষয়টি শ্রীপুরে জানাজানি হয়ে গেলে নিজের মান সম্মান রক্ষা করতে উল্টো পুলিশকে আর্থিক সুবিধা দিয়ে গ্রেফতারকৃত দু’জনকে ২৮ ডিসেম্বর শনিবার গভীর রাতে ছাড়িয়ে নিয়ে যায়। পুলিশ আরও জানায়, জব্দকৃত সিডি পর্যালোচনা করলে আ’লীগ নেতার বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছে বলে প্রতীয়মান হয়। এ নারী কেলেংকারীর সাথে বিদ্যালয়ের কতক শিক্ষক ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির কতক সদস্য জড়িত আছে বলে জনশ্র“তি রয়েছে।

Facebook Comments
শেয়ার করুন