নির্বাচন বয়কটের ঘোষণা ১১স্বতন্ত্র প্রার্থীর

0
6
Print Friendly, PDF & Email

শ্রীপুর নিউজ:দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ছয় সংসদীয় আসনে ১১ স্বতন্ত্র প্রার্থী  ভোট বয়কটের ঘোষণা দিয়েছেন। সরকারি দলের প্রার্থীদের ভোট কারচুপি ও পোলিং এজেন্ডদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়ায় তারা দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন বর্জন করেন।

ভোট বর্জনকারী প্রার্থীরা হলেন, ঢাকা-১৫ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী এখলাস উদ্দিন মোল্লা, বরগুনা-২ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল হোসেন সিকদার, বরিশাল-২ আসনের  স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবিনা আক্তার, লক্ষীপুর-৪ (রামগতি-কমলনগর) আসনের দুই স্বতন্ত্র প্রার্থী একে এম আজাদ উদ্দিন চৌধুরী ও অ্যাডভোকেট একে এম শরিফুদ্দিন, জামালপুর-১ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী আজিজ আহম্মদ হাসান এবং জামালপুর-২ আসনে আতিকুর রহমান,সিরাজগঞ্জ-৫ (বেলকুচি-চৌহালী) আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী আতাউর রহমান রতন।

ঢাকা-১৫ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী এখলাছ উদ্দিন মোল্লা রবিবার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে নির্বাচন কমিশন সচিবলায়ে ভোট কেন্দ্র থেকে পোলিং এজেন্টদের বের করে দেওয়া অভিযোগ এনে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন। তিনি অভিযোগ করেন, আওয়ামী লীগের প্রার্থী কামাল আহমেদ মুজুমদার অধিকাংশ ভোট কেন্দ্র থেকে তার পোলিং এজেন্টদের বের করে দিয়েছেন।

বরিশাল-২ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবিনা আক্তার ভোট কারচুপি ও পোলিং এজেন্টদের ভোট কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়ার অভিযোগে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন।

তার স্বামী মহাজোটের শরীক জাসদের কেন্দ্রীয় সাংগঠিনিক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ বাদল বলেন, নির্লজ্জভাবে কারচুপি ও অনিয়ম করে যাচ্ছে সরকারী দলের নেতাকর্মীরা এবং প্রশাসনেরও সহায়তা রয়েছেন তাদের পক্ষে।

লক্ষীপুর-৪ (রামগতি-কমলনগর) আসনের দুই স্বতন্ত্র প্রার্থী  একে এম আজাদ উদ্দিন চৌধুরী ও অ্যাডভোকেট একে এম শরিফুদ্দিন অর্ধ শতাধিক ভোটকেন্দ্রে কারচুপির অভিযোগ এনে ভোট বয়কটের ঘোষণা দেন।

রবিবার সকাল পৌনে ১১টার দিকে একে এম আজাদ উদ্দিন চৌধুরী ভোট বয়কটের ঘোষণা দিয়ে বলেন, আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল মামুনের সমর্থকরা ভোট কারচুপি করছেন। ভোটকেন্দ্রে তার সমর্থকদের ওপর খবরদারি করছেন তারা।

এছাড়া ঢাকা-৬ আসনে স্বতন্ত্রপ্রার্থী মো. সাইদুর রহমান সহিদও নির্বাচন বয়কট করেছেন। তিনি বলছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থীর পক্ষে প্রশাসন কাজ করছে।

এদিকে সরকারের প্রহসনের নির্বাচনের সঙ্গী জাতীয় পার্টি (জেপি)র ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়া সদর-৩ আসনের প্রার্থী ডা. ফরিদ আহম্মেদ নিজ ভোট দিতে না পারায় নিবার্চন বজনের ঘোষণা দিয়েছেন।

ব্রাক্ষ্মণবাড়ীয়া শহরের অন্নদা সরকারি উচ্চবিদ্যালয়ের ভোটকেন্দ্রে সকাল সোয়া ১০টায় প্রার্থী ডা. ফরিদ আহম্মেদ ভোট দিতে এসে দেখেন তার ভোট দেয়া হয়ে গেছে। এ ঘটনায় তিনি ব্রাক্ষ্মণবাড়ীয়া জেলা প্রশাসক ও রির্টানিং অফিসার ড. মো. মোশারফ হোসেনকে বিষয়টি মুঠোফোনে অবগত করলে রির্টানিং অফিসার তার পোলিং এজেন্ট না দেয়ায় ভোট দেয়া হয়ে যেতে পারে বলে প্রার্থী ফরিদকে জানান।

এছাড়া শেরপুর-২ আসনে (নকলা নালিতাবাড়ি) স্বতন্ত্র প্রার্থী বদিউজ্জামান বাদশা নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। তিনি অভিযোগ করেছেন, এখানে কোনো নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর পক্ষে প্রশাসন কাজ করছে। এ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হলেন কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী।

এদিকে ভোটকেন্দ্র থেকে এজেন্টদের বের করে দিয়ে টেবিলকাস্টের (জালভোট) অভিযোগ করেছেন সিলেট-২ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী মুহিবুর রহমান। রবিবার সকালে বিশ্বনাথ উপজেলার হাজী মফিজ আলী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দিতে এসে সাংবাদিকদের কাছে এ অভিযোগ করেন তিনি।

পাবনা-১ (সাঁথিয়া-বেড়া) নির্বাচনী এলাকার একটি ভোট কেন্দ্রে ভোট কারচুপির চেষ্টাকালে পুলিশ বাধা দিয়েছে। এসময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে দুই রাউন্ড ফাঁকা গুলিবর্ষণ করেছে পুলিশ। দুপুর ১২ টার দিকে সাঁথিয়া উপজেলার সামান্যপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটেছে।

সিরাজগঞ্জ: ভোট কারচুপি, পোলিং এজেন্টদের ওপর হামলা ও ভোট কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়ার অভিযোগ এনে সিরাজগঞ্জ-৫ (বেলকুচি-চৌহালী) আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী আতাউর রহমান রতন ভোট বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন। রবিবার বেলা ১২টার দিকে বেলকুচি উপজেলা অস্থায়ী প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি এই ঘোষণা দেন।

Facebook Comments
শেয়ার করুন