আওয়ামী লীগ-জাপা সরকারে, বিরোধী দলে কে?

0
6
Print Friendly, PDF & Email

শ্রীপুর নিউজ: সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হিসেবে সরকার গঠন করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। অন্যদিকে সম্ভাব্য বিরোধী দল জাতীয় পার্টি বলছে, তারাও বিরোধী দলের ভূমিকার পাশাপাশি সরকারের অংশীদার হচ্ছেন। মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রীসহ বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করবেন। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, জাতীয় পার্টি আওয়ামী লীগের সঙ্গে ক্ষমতার অংশীদার হলে বিরোধী দলের দায়িত্বও পালন করবে। এ নিয়ে এখন নানা প্রশ্ন। ওদিকে রোববার বেলা সাড়ে তিনটায় নতুন মন্ত্রিসভার শপথ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। ইতিমধ্যে সব প্রস্তুতি শেষ করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। ১২০০ কার্ড ছাপিয়েছে। দাওয়াত করা হবে ৮০০ অতিথিকে। ইতিমধ্যে অতিথির তালিকাও চূড়ান্ত হয়েছে। আজ কার্ড বিলি শুরু হবে। এর আগে গতকাল সন্ধ্যায় দশম সংসদের সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের নেতা হিসেবে আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রেসিডেন্ট আবদুুল হামিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে বঙ্গভবনে যান। সেখানে আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের সিদ্ধান্তের কথা শেখ হাসিনা প্রেসিডেন্টকে অবহিত করেন। ওই সময় প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদ শেখ হাসিনাকে সরকার গঠনের আহ্বান জানান। একই দিন সকালে জাতীয় সংসদ ভবনে আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত সংসদ সদস্যরা শপথ নেন। এরপর আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের বৈঠকে শেখ হাসিনাকে সংসদীয় দলের নেতা নির্বাচন করা হয়।

২৮৪ এমপির শপথ: ২৮৪ জন এমপির শপথের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে দশম জাতীয় সংসদের যাত্রা। আগামী ২৬শে জানুয়ারি এ সংসদের প্রথম অধিবেশন ডাকা হচ্ছে। গতকাল সংসদ সচিবালয় থেকে এ তথ্য জানানো হয়। এদিকে অসুস্থ ও দেশের বাইরে থাকায় জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদসহ ৫জন শপথ গ্রহণ করতে পারেননি। তারা শপথ গ্রহণের জন্য এক মাস সময় পাবেন। স্পিকার ড. শিরিন শারমিন চৌধুরী গতকাল সংসদ সচিবালয়ে ৭ দফায় এমপিদের শপথ পড়ান। জাতীয় সংসদের সিনিয়র সচিব মো. আশরাফুল মকবুল শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন। প্রথম দফায় সকাল সোয়া ১০টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও জাতীয় পার্টি (জেপি)’র আনোয়ার হোসেন মঞ্জুসহ ২২৪জন, সোয়া ১১টায় দ্বিতীয় দফায় নবনির্বাচিত বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদসহ ৩১ জন, পৌনে ১২টায় রাশেদ খান মেননসহ ওয়ার্কার্স পার্টির ৬ জন, হাসানুল হক ইনুসহ জাসদের ৪ জন, বিএনএফ-এর একজন ও তরীকত ফেডারেশনের একজন এবং বাকি ৪ দফায় স্বতন্ত্র সদস্যসহ আওয়ামী লীগের অন্য সদস্যরা শপথ গ্রহণ করেন। শপথ গ্রহণকালে সংসদ সদস্যরা ব্যক্তি স্বার্থের ঊর্ধ্বে থেকে দায়িত্ব পালনের অঙ্গীকার করেন।

শপথ গ্রহণের আগে জাতীয় সংসদ ভবনে দলীয় কার্যালয়ে সমবেত হন জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্যরা। দলের সিনিয়র প্রেসিডিয়াম সদস্য রওশন এরশাদের নেতৃত্বে তারা বেলা ১১টার দিকে শপথ কক্ষে যান। স্পিকার বেলা সোয়া ১১টার দিকে তাদের শপথ পড়ান। এ সময় দলের চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ ও নাসিম ওসমান অনুপস্থিত ছিলেন। অসুস্থ এরশাদ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকায় শপথ নিতে পারছেন না বলে দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়। তবে আজকালের মধ্যে তিনি শপথ নেবেন বলেও জানানো হয়। জাতীয় পার্টির দু’জন ছাড়াও আওয়ামী লীগের সাবের হোসেন চৌধুরী ও নাজমুল হাসান পাপন এবং জাসদের মইনউদ্দীন খান বাদল গতকাল শপথ নেননি। নিয়মানুযায়ী তারা শপথ গ্রহণের জন্য এক মাস সময় পাবেন বলে জানিয়েছেন স্পিকার শিরিন শারমিন চৌধুরী। তিনি আরও বলেন, নির্দ্দিষ্ট কারণ দেখিয়ে তারা আরও সময় নিতে পারেন।

গত ৫ই জানুয়ারি অনুষ্ঠিত দশম সংসদের ৩০০ আসনের মধ্যে আটটি আসনের ফলাফল স্থগিত আছে। বাকি ২৯২টি আসনের মধ্যে আওয়ামী লীগ ২৩১, জাতীয় পার্টি ৩৩, ওয়ার্কার্স পার্টি ছয়, জাসদ পাঁচ, জাতীয় পার্টি-জেপি এক, তরীকত ফেডারেশন এক, বিএনএফ এক এবং স্বতন্ত্র ১৪ জন প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। প্রধান বিরোধী দল বিএনপি নির্বাচন বর্জন করেছে। নির্বাচনে ১৫৩ জন এমপি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন।

Facebook Comments
শেয়ার করুন