অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করতে গিয়ে ম্যাজিস্ট্রেটসহ কর্মকর্তারা অবরুদ্ধ

0
16
Print Friendly, PDF & Email

গাজীপুরের হারবাইদ মাদ্রাসা এলাকায় সোমবার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করতে গিয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং তিতাস গ্যাসের কর্মকর্তারা জনতার রোষানলে পড়েছেন। কয়েক হাজার মারমুখী মানুষ তাদের প্রায় দেড় ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখে। অভিযানের সময় তিতাস কর্তৃপক্ষের দুটি গাড়ি ভাংচুর করে জব্দকৃত মালামাল বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ছিনিয়ে নেয়। পরে অতিরিক্ত পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। এ নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।
সোমবার দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বিজেন ব্যানার্জির নেতৃত্বে তিতাস গ্যাসের টঙ্গী অঞ্চলের কর্মকর্তারা অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার জন্য হারবাইদ এলাকায় অভিযানে নামে। অভিযানের সময় তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির টঙ্গী জোনাল মার্কেটিং অফিসের ম্যানেজার ইঞ্জিনিয়ার শাহিরুল ইসলাম খান, ডেপুটি ম্যানেজার খুরশেদ আলম, কর্মকর্তা সেলিম মিয়াসহ বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন। দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে ২টা পর্যন্ত তারা হারবাইদ সিনিয়র মাদ্রাসা মাঠের কাছ থেকে বেরাইদের চালা বাজার পর্যন্ত স্থাপিত প্রায় ৬ হাজার ফুট দীর্ঘ অবৈধ গ্যাস লাইন বিচ্ছিন্ন করা হয়। এ সময় মাটির নিচে স্থাপিত ৩ ইঞ্চি এবং ২ ইঞ্চি ব্যাসের বিপুল পরিমাণ পাইপ তুলে তা জব্দ করা হয়। জব্দকৃত পাইপ এবং অন্যান্য মালামাল গাড়িতে ওঠানোর সময় এলাকার হাজার হাজার লোক লাঠিসোটা নিয়ে তাদের অবরুদ্ধ করে। উত্তেজিত জনতা ইটপাটকেল ও গাছের ডাল ফেলে রাস্তায় ব্যারিকেড সৃষ্টি করে। তারা হামলা চালিয়ে দুটি গাড়ি ভাংচুর করে ২০ ফুট দৈর্ঘ্যের ও ৩ ইঞ্চি ব্যাসের ৯১টি এবং ২ ইঞ্চি ব্যাসের ৩টি পাইপ এবং অন্যান্য মালামাল নিয়ে যায়। খবর পেয়ে মীরের বাজার পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করে। এ সময় ২০-২৫টি মোটরসাইকেল নিয়ে টঙ্গী ও হারবাইদ এলাকার অর্ধশতাধিক যুবক তাদের সাথে যোগ দেয়। পরিস্থিতির অবনতি ঘটলে অতিরিক্ত পুলিশ সদস্য ও র‌্যাব সদস্যরা গিয়ে অবরুদ্ধদের উদ্ধার করে। পরে বিকেলে মীরের বাজার-টঙ্গী সড়কের পাশে এপিএস গ্রুপের সামনে প্রধান সরবরাহ লাইন থেকে গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। এ ব্যাপারে তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির টঙ্গী জোনাল মার্কেটিং অফিসের ম্যানেজার ইঞ্জিনিয়ার শাহিরুল ইসলাম খান উপস্থিত সাংবাদিকদের জানান, অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার অভিযান অব্যাহত থাকবে।

Facebook Comments