দল চাইলে প্রধানমন্ত্রী প্রার্থী হতে প্রস্তুত রাহুল

8

কংগ্রেসের সহসভাপতি রাহুল গান্ধী বলেছেন, দলের নেতৃত্ব চাইলে যেকোনো দায়িত্ব পালনের জন্য তিনি প্রস্তুত আছেন। গত মঙ্গলবার ভারতীয় হিন্দি দৈনিক ভাস্করকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘দেশের ভালোর জন্য কংগ্রেসের ক্ষমতায় আসা জরুরি। আর সে জন্য দল আমাকে যে দায়িত্ব্ব দেবে, তা নিষ্ঠার সঙ্গে পালন করব।’

আগামীকাল শুক্রবার রাজধানী নয়াদিল্লিতে বসছে সর্বভারতীয় কংগ্রেস কমিটির (এআইসিসি) অধিবেশন। দলের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী এই অধিবেশন থেকে আগামী লোকসভা নির্বাচনে দলীয় প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থীর নাম ঘোষণা করা হতে পারে। বিশ্লেষকরা বলছেন, অধিবেশনের আগে রাহুলের গুরুদায়িত্ব পালনে প্রস্তুত থাকার মন্তব্যের মধ্য দিয়ে এটা স্পষ্ট হয়েছে যে, তাঁর নেতৃত্বেই কংগ্রেস লোকসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নামবে। যদিও এমনিতেও গুঞ্জন রয়েছে, রাহুলকেই আগামী এপ্রিলে অনুষ্ঠেয় লোকসভা নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী করবে কংগ্রেস। তা ছাড়া প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং ইতিমধ্যে জানিয়ে দিয়েছেন, তৃতীয় মেয়াদে দেশ পরিচালনার জন্য তিনি আর আগ্রহী নন। রাহুলের অধীনে কাজ করতে পারাটাও তাঁর জন্য সুখের হবে। এ অবস্থায় কংগ্রেসের সামনে রাহুলই একমাত্র বিকল্প বলে মনে করা হচ্ছে।

বিশ্লেষকরা মনে করছেন, রাহুলের এই সাক্ষাৎকার আসলে কংগ্রেস নেতৃত্বের একটা কৌশল। তাঁদের মতে, আগামীকাল কংগ্রেসের অধিবেশনের আগে একটা আবহ সৃষ্টির জন্যই এ সাক্ষাৎকার দেওয়া হয়েছে। এর মাধ্যমে দলের তরফে তাঁকে সামনে এগিয়ে দেওয়ার পথ তৈরি করা হলো মাত্র। এটুকু অন্তত পরিষ্কার যে, রাহুলকে প্রধানমন্ত্রী প্রার্থী করা হোক বা দলীয় সভাপতি পদের দায়িত্ব দেওয়া হোক, তাঁর নেতৃত্বেই ভোটে লড়বে কংগ্রেস। বিজেপি (ভারতীয় জনতা পার্টি) সম্পর্কে রাহুলের করা মন্তব্যকেও বেশ তাৎপর্যপূর্ণ মনে করছেন বিশ্লেষকরা। রাহুল সাক্ষাৎকারে বিজেপির প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী নরেন্দ্র মোদিকে ইঙ্গিত করে বলেছেন, ‘বিজেপি চাইছে ব্যক্তিকেন্দ্রিক ক্ষমতা, যা দেশের জন্য ভালো নয়। সরকার একজন ব্যক্তিবিশেষের ভাবনা ও তাঁর ব্যক্তিগত পদ্ধতিতে চলতে পারে না।’

কংগ্রেসের শীর্ষ নেতারা মনে করছেন, রাহুলের নেতৃত্ব নিয়ে যে ‘ঘোষণা’ দেওয়া হচ্ছে আগামীকাল, তার চেয়েও বেশি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে রাহুলের এদিনের বক্তৃতা। সূত্র : এএফপি, আনন্দবাজার পত্রিকা

Facebook Comments