কালিয়াকৈরে তিতাস গ্যাসের ৫ শতাধিক চোরাই সংযোগ বিছিন্ন

0
21
Print Friendly, PDF & Email

কালিয়াকৈর উপজেলার ২৩টি গ্রামের তিতাস গ্যাসের ৬ কিলোমিটার চোরাই সংযোগ বিছিন্ন করা হয়েছে। ম্যাজিষ্টেট, পুলিশ ও তিতাস গ্যাস কোম্পানীর লোকসহ ৭০ জনের একটি টিম গ্যাস বিছিন্ন কাজে অংশ নেয়।
জানাযায়, তিতাস গ্যাস সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের কতিপয় অসাধু কর্মকর্তা, এক শ্রেণীর লাইসেন্স বিহীন ঠিকাদার ও স্থানীয় প্রভাবশালী মহলের যোগসাজসে লাখ লাখ টাকার বিনিময়ে উপজেলার দক্ষিণ মৌচাক, পুর্ব মৌচাক, হরিণহাটি, বিশ্বাস পাড়া, উলুসাড়া, হিজলহাটি, সফিপুর আন্দার মানিক, সুরিচালা, চন্দ্রা, ডাইনকিনি ,সিনাবহ, বান্নারা, খোলারটেক, ভাতারিয়া, খোলাপাড়া, মাঝুখান, মাটিকাটা, গোয়ালবাথান, কালিয়াকৈর, কালামপুর, বড়ইতলী ও উত্তর হিজলতলীসহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় গত ছয় মাসে ৭২টি স্পটে ১০ সহস্রাধিক অবৈধভাবে গ্যাস পাইপ লাইনের সংযোগ দেয়া হয়। সংশ্লিষ্ট সরকারী কর্মকর্তাদের কৌশলে ম্যানেজ করে সম্পুর্ণ অবৈধভাবে সংযোগ দেয়া এসব লাইনে কোন প্রকার বিল ছাড়াই নির্বিঘেœ গ্যাস ব্যবহার করা হচ্ছিল। ফলে ওই সব অবৈধ গ্যাস পাইপ লাইনে নির্বিঘেœ পুড়ছে গ্যাস আর সরকার হারাচ্ছে লক্ষ টাকার রাজস্ব। এব্যপারে দৈনিক ইত্তেফাকসহ বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ করা হলে প্রশাসনের টনক নড়ে । সোমবার উপজেলার উপজেলার দক্ষিণ মৌচাক, ভান্নারা ও ধোপাচালা এলাকায় ৩টি গ্রামের ৬ কিলোমিটার ৫ শতাধিক অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে তিতাস গ্যাস কোম্পানী। ওই সকল এলাকায় মাটির নিচে থাকা গ্যাসের পাইপ তুলে নিয়ে লাইনের গ্যাস বন্ধ করে সিলগালা করে দেওয়া হয়। অভিযানের সময় মুল সংযোগ বিছিন্ন করে ব্যবহার করা রাইজার গুলোও খুলে নেওয়া হয়েছে। উপজেলার সকল অবৈধ গ্যাস লাইন পর্যায়ক্রমে বিছিন্ন করা হবে বলে জানা গেছে। এব্যপারে তিতাস গ্যাস কোম্পানীর কালিয়াকৈরের চন্দ্রা জোনের ম্যানেজার এম এ সাইফুল ইসলাম বলেন,কালিয়াকৈর উপজেলার সকল অবৈধ গ্যাস লাইন পর্যায়ক্রমে বিছিন্ন করা হবে।অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিছিন্ন অভিযান নিয়মিত চলবে।যারা অবৈধ গ্যাস সংযোগ দিয়েছে আর যারা অবৈধভাবে ব্যবহার করছে সবার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। গাজীপুরের নির্বাহী ম্যাজিষ্টেট এএনএম বদরুদোজ্জা রোমান জানান, অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিছিন্ন করে সিলগালা করে দেওয়া হচ্ছে। বর্তমানে মূল লাইন থেকে কেটে দেওয়া হচ্ছে। যারা জড়িত মামলা করে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Facebook Comments