মোবাইল ফোনে বিপথগামী হচ্ছে শিশু কিশোররা

0
19
Print Friendly, PDF & Email

মোবাইল ফোন শুধু রাতের ঘুমই কেড়ে নেয়নি। কেড়ে নিয়েছে স্কুলগামী শিশু-কিশোরদের হাত থেকে বই-খাতা। সে সাথে অধ্যাবসায়ের প্রতি অমনুযোগী হচ্ছে নতুুন প্রজন্ম। মোবাইল নিয়ে সারাক্ষন ঘাঁটা ঘাঁটি করাই তাদের নেশা। এতে নতুন প্রজন্ম একদিকে মেধাশূন্য অপরদিকে সামাজিক ভাবে বিঘ্নিত হচ্ছে নিরাপত্তা। একই সাথে বাড়ছে পরিবারিক বিশৃঙ্খলা। মোবাইল ফোন কালচারে শুধূ ছেলেরাই গাঁ ভাষায়নি মেয়েরাও সমান তালে মোবাইলনেশায় আসক্ত হয়ে পড়েছে। হাতের মোঠোয় যোগাযোগের এ যাদুকরী যন্ত্র যেন উঠতি বয়সী ছেলে মেয়েদের কাছে আকাশের চাঁদ হাতে পাওয়ার মতো অবস্থা হয়েছে। মোবাইল ফোন ছেলে-মেয়েদের শুপ্ত রেমান্টিকতাকে বেপরোয়া ভাবে ফুসকে দিচ্ছে। সারা রাত জেগে বন্ধু-বান্ধবদের সাথে আড্ডা দিয়ে চোখ লাল করছে উঠতি বয়সের ছেলে মেয়েরা।

এ অবস্থা বেশী দিন চলতে থাকলে বর্তমান প্রজন্মের ভবিষ্যৎ একেবারে অন্ধকারে আচ্ছন্ন হবে বলে আশংকা করছেন দেশের প্রক্ষ্যাত মনস-ত্ববিদগন। আড্ডা,প্রেম আর সেক্স এসবই চলছে মোবাইল ফোনে। তাই মোবাইল ফোন  এখন শিশু-কিশোরদের জন্য নতুন এক নেশার জগৎ সৃষ্টি করেছে। এ যেন এক মরন ফাঁদ নেশা।  কোন শাশ্বন বরনই তাদের এ নেশা থেকে ফেরাতে পাছেনা। এ বিষয়ে শিশু মনসত্মত্ববিদগন বলছেন,যারা বেপরোয়া মোবাইল আসক্তিতে পড়েছে তারা অদূর ভবিষ্যতে মানসিক বিকৃতির স্বীকার হতে পারে। অপর দিকে হাতের মোঠোয় যোগাযোগের এ যাদুকরী যন্ত্রটি ব্যবহার করে সন্ত্রস,খুন,ধর্ষণ,চুরি,ডাকাতি,ছিনতাই বহুগুনে বেড়ে গেছে। শুধূ তাই নয় মোবাইল আসক্তি এক সময় ইউজারদের মাদকাশক্তির এক নীল জগতে নিয়ে যাবে। এ ভাবে আজকের শিশু-কিশোররা আগামী দিনে জাতির জন্য সব চেয়ে ভয়ংকর এক বেঝা হয়ে দাঁড়াবে। বেড়ে যাবে বেকার সমস্যা। ভেসেত্ম যাবে দেশের আর্থসামাজিক অবস্থা।

Facebook Comments