বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হলে কঠোর আন্দোলন: ফখরুল

0
14
Print Friendly, PDF & Email

 

 

 

সরকর সম্পূর্ণভাবে গণবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। ফলে বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি করে জনগণের সুবিধা ও স্বার্থকে অগ্রাহ্য করার মাধ্যমে সরকার গণবিরোধী সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।বুধবার সন্ধ্যায় গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এ মন্তব্য করেন। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করেন, গত ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় বসার পর থেকেই বেশ কয়েক দফা বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি করেছে। বিদ্যুতের সাধারণ গ্রাহক শ্রেণীর ওপর অস্বাভাবিক বিদ্যুৎ বিলের বোঝা চাপানো হয়। ক্ষমতাসীনদের আত্মীয় স্বজনদের লুটপাটের স্বর্গরাজ্য বানানো হয় বিদ্যুৎ সেক্টরকে। রেন্টাল ও কুইক রেন্টাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনে হাজার হাজার কোটি টাকা লোপাট করে সরকারের ঘনিষ্ঠজনেরা।

মির্জা আলমগীর আরো অভিযোগ করেন, সরকার বিদ্যুৎ সেক্টরকে ধবংস করে এখন গরিব, নিম্নমধ্যবিত্ত ও মধ্যবিত্ত গ্রাহকদের ওপর বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি করছে।  বিদ্যুৎ জনজীবনের জন্য অপরিহার্য, তাই এই খাতকে নিয়ে ছিনিমিনি খেলতে তারা কখনো কার্পন্য করেছে না। জনস্বার্থকে তাচ্ছিল্য করে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর যে প্রস্তাব করা হয়েছে তার তীব্র নিন্দা জানান মির্জা ফখরুল। বিএনপির এ নেতা বলেন, দু:শাসনের করাল গ্রাসে অর্থনৈতিকভাবে বিপর্যস্ত মানুষকে স্বস্তি না দিয়ে সরকার একের পর এক উচ্চ মাত্রায় জনগণের ওপর করের বোঝা চাপিয়ে যাচ্ছে। গরিব মানুষকে আরো বেশি অসহায় ও হতভাগ্য করার জন্য সরকার মনে হয় কোমর বেঁধে নেমেছে। ক্ষমতা জবরদখলকারি এ সরকার মূলত: জনগণকেই শক্রপক্ষ বানিয়ে তাদের ওপর শোষণ, জুলুম ও নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে।

সম্প্রতি বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড সবচেয়ে ধনী আবাসিক গ্রাহকদের প্রতি ইউনিটের বিদ্যুতের দাম দুই পয়সা বৃদ্ধি এবং দরিদ্র আবাসিক গ্রাহকদের প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম দেড় টাকা বৃদ্ধি করার প্রস্তাবের মধ্যে বর্তমান অবৈধ সরকারের যথেচ্ছাচারের  চরম মাত্রা বলে মন্তব্য করেন মির্জা আলমগীর। তিনি বলেন, এছাড়াও পিডিবির প্রস্তাবে সবেচেয়ে গরিব ছাড়াও দ্বিতীয়, তৃতীয় ও চতুর্থ ধাপের নিম্ন ও মধ্যবিত্ত গ্রাহকদের ক্ষেত্রে মূল্য বৃদ্ধির হার অনেক বেশী রাখা হয়েছে। জাতীয় অর্থনীতির ভরকেন্দ্র কৃষিকে বিপর্যস্ত করতে সেচ পাম্পের জন্য প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম ৬০ শতাংশ বৃদ্ধি করা হয়েছে। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, বর্তমান অবৈধ সরকার গায়ের জোরে ক্ষমতায় আছে। সরকার জনসমর্থনহীন, তাই জনগণের নিকট তাদের কোনো জবাবদিহিতা নেই। ফলে তারা কোনো কিছুরই পরোয়া করছে না। স্বার্থান্ধতা ও ঔদ্ধত্য মিশেলে এরা অপশাসনের দুর্বৃত্তচক্র গড়ে তুলেছে। আর এই জন্য জনগণের সুখ, শান্তি  ও স্বাচ্ছন্দের নিশ্চয়তার প্রতি দায়বোধ করেনা বলেই বিদ্যুতের মতো একটি গুরুত্বপূর্ণ জরুরি খাতকে লোপাট করে জনগণের ওপর বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির জগদ্দল পাথর চাপানো হচ্ছে। তিনি সরকারের উদ্দেশ্যে হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করে বলেন, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের প্রস্তাবিত বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি কার্যকর করা হলে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৯ দলীয় জোটের পক্ষ থেকে কঠোর প্রতিরোধ গড়ে তোলা হবে।

 

 

 

Facebook Comments
শেয়ার করুন