ধুয়াসাচ্ছন্ন উপজেলা নির্বাচন-প্রত্যাশা কী!!

17
upozila

সহ-সম্পাদকঃ নিয়ামুস সালেহ মিশুক, শিক্ষানবিশ আইনজীবী, ঢাকা জজ কোর্ট

বিগত উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে শুধু মাত্র বসার চেয়ার ও একটা গাড়ী ব্যবহার করা ছাড়া তারা কতটুকু জন কল্যাণমুখি কাজে নিজেদেরকে সম্পৃক্ত করতে পেড়েছেন, যদি কোন ভাবে তারা নিজেদেরকে জন কল্যাণমুখি কাজে নিয়োজিত করতে না পেড়ে থাকেন অথবা যদি আইনগত ভাবে একজন চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে জন কল্যাণমুখি কাজে নিয়োজিত হবার কোন সুযোগ না থাকে তবে কেন তাদেরকে জনগনের কোটি কোটি টাকা খরচ করে নির্বাচিত করতে হবে, কেন তাদের মাসিক বেতন-ভাতা দিয়ে সরকারের অর্থ অপচয় করা হয়, কি প্রয়োজন তাঁদের, তবে কি তারা সিন্দাবাদের ভূতের মত আমাদের ঘাড়ে চেপে বসেছেন? স্থানীয় পর্যায়ে তাদের কোন কাজ থাকে না শুধু মাত্র নাম কায়েস্থ চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত করা হয়

এই হোপলেস উপজেলা পদ্ধতি কাজী জাফরের থুতু বাবা এরশাদের প্রবর্তন, জানি না কতটুকু বিচক্ষণতার পরিচয় দিয়েছিলেন তিনিএই থুতু বাবা এরশাদের প্রবর্তিত উপজেলা পদ্ধতি জনগণের কতটা উপকারে এসেছে তা একমাত্র তিনিই জানেনসদ্য উপজেলা নির্বাচনের প্রথম দিকে জনগণের রায় প্রতিফলিত হলেও ধাপে ধাপে তা জনগণের রায়ের সঠিক প্রতিফলন ঘটেনিঅনেক ক্ষেত্রে জনগণের ভোট ছাড়াই একদলীয় প্রতিনিধি সৃষ্টি করা হয়েছেএ বিষয়টি পরবর্তী প্রজন্ম দীর্ঘ দিন মনে রাখবে এবং তা একটি কালো অধ্যায় হিসেবে ইতিহাসের পাতায় লিখিত থাকবেএরই ধারাবাহিকতা বজায় থাকলে  বাংলাদেশের জনগণের ভোটের আর প্রয়োজন পরবে নাভোটের অধিকার থেকে জনগণ বঞ্চিত হয়ে গর্বিত জাতি খর্বিত হবেআমরা মুখে বলে থাকি জনগণ সকল ক্ষমতার উৎস কিন্তু বাস্তবতা আজ ভিন্নরূপ ধারণ করেছেবিগত উপজেলা নির্বাচনগুলো খালি করেছে কত মায়ের বুক, কত পিতার সন্তান, ছেলেহারা মায়ের আহাজারিতে এখনো ভারী হয়ে আছে বাংলার বাতাসযে নির্বাচনে বাংলার মানুষের কোন অপকার ছাড়া উপকারে আসবে না তেমন নির্বাচন আমাদের দেশে প্রয়োজন আছে বলে মনে হয় নাতাহলে কি আমরা বাংলাদেশীরা স্বাধিনতার ৪২ বৎসর পরও রাজনৈতিক শিষ্টাচার শিখতে পাড়লাম না!!

শেষ কথা, নির্বাচন সেটা জাতীয় বা স্থানীয় যাই হোক না কেন তা হতে হবে দেশের জনগণের কল্যাণের জন্য এবং নির্বাচন কেন্দ্র করে কোন হত্যা, হামলা, দাঙ্গা-হাঙ্গামা কারো কাম্য নয়

তাই আসুন আমরা সকলে ঐক্যবদ্ধ ভাবে জণকল্যাণে সহিংস রাজনীতি পরিহার করে সুস্থ ধারার রাজনীতি চর্চা করি। 

Facebook Comments