শ্রীপুরে এক দিনে ৩ খুন

0
12
Print Friendly, PDF & Email

ষ্টাফ রিপোর্টার: শ্রীপুরে এক দিনে পৃথকভাবে ৩ খুনের ঘটনা ঘটেছে। জানা গেছে, উপজেলার বরমী বাসস্ট্যান্ড থেকে এক শিশুর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত শিশু বরমী বাজারের রফিকুল ইসলামের ছেলে মেহেদী হাসান সায়েম (১১)। সে বরমী বাজারের আল মদীনা কিন্ডারগার্টেনের পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র। ১০ এপ্রিল বৃহস্পতিবার বেলা ১২টায় বরমী বাজার নতুন বাসস্ট্যান্ডের কাছে একটি পরিত্যাক্ত ছাপড়া ঘরোর ভেতর থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। শ্রীপুর থানার এসআই ফরিদ হোসেন জানান, সায়েম বুধবার সন্ধ্যা ৭ টার দিকে তার বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়। রাতে অনেক জায়গায় খোঁজাখুঁজি করে তাকে পাওয়া যায়নি। বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার দিকে এলাকাবাসী বরমী বাজার বাসস্ট্যান্ডের পাশে পরিত্যাক্ত স’ানে লাশটির সন্ধান পায়।

এদিকে, একই উপজেলার প্রহলাদপুর ইউনিয়নের কদমা গ্রামে মাকসুদা আক্তার ইভা (২০) নামে এক স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা করেছে তার স্বামী। বৃহস্পতিবার রাত ১টার দিকে স্বামী খোরশেদ আলম তার নিজ বাড়িতে তাকে হত্যা করে। পুলিশ অভিযুক্ত স্বামী খোরশেদ আলমকে গ্রেপ্তার করেছে। শ্রীপুর থানার ওসি আমির হোসেন জানান, গত ৫ বছর আগে পার্শ্ববর্তী কালীগঞ্জ উপজেলার ফুলদিয়া গ্রামের আমিন উদ্দিনের কন্যা ইভার সাথে শ্রীপুর উপজেলার কদমা গ্রামের মৃত মোহাম্মদ আলী দর্জির ছেলে খোরশেদ আলমের বিয়ে হয়। খোরশেদ আলম বিয়ের পূর্ব থেকেই মাদক ব্যবসার সাথে জড়িয়ে পড়ে। স্ত্রী মাদক ব্যবসায় বাধা দেওয়ায় বিরোধের সৃষ্টি হয়। ওই বিরোধের জেরে ঘটনার রাতে খোরশেদ আলম তার স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা করে। লাশের মাথা ও গায়ে একাধিক জখমের চিহ্ন রয়েছে। অভিযুক্ত স্বামী খোরশেদ আলমকে গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

অপরদিকে, বুধবার সন্ধ্যায় গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার পাঁচুলটিয়া গভীর বন থেকে অজ্ঞাত এক নারীর অর্ধ গলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তার গা পাতা দিয়ে ঢাকা ছিল। শ্রীপুর থানার ওসি  আমির হোসেন জানান, এলাকাবাসীর খবরের ভিত্তিতে বনের ভেতর মাটিতে লাশটির সন্ধান পাওয়া গেছে। অন-ত তিনদিন আগে হত্যা করে লাশটি কেউ বনের ভেতর ফেলে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। লাশের গলায় কাপড় পেঁচানো ছিল। লাশগুলো বৃহস্পতিবার ময়না তদনে-র জন্য গাজীপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

Facebook Comments