আলভেজকে কলা ছোড়া নিয়ে তোলপাড় ফুটবলবিশ্ব

0
7
Print Friendly, PDF & Email
neymer

গাজীপুর খেলাধুলা ডেস্কঃ ম্যাচের শেষ দিকে কর্নার নিতে গিয়ে দর্শকদের মধ্যে থেকে হঠাৎই কেউ তাঁকে কলা ছুড়ে মেরেছিলেন। ধীরে সুস্থে এগিয়ে এসে মাঠের মধ্যে পড়ে থাকা কলাটা ছাড়িয়ে মুখে পুরে দিয়েই ফের কর্নার কিকের তোড়জোড় শুরু করেন। ভিয়ারিয়ালের বিরুদ্ধে রবিবার রাতে ম্যাচে বার্সেলোনার ব্রাজিলীয় ফুলব্যাক দানি আলভেজের এই মোক্ষম ‘ট্যাকল’ই তোলপাড় পড়ে গিয়েছে। ম্যাচ চলাকালীন ব্রাজিলীয় ফুটবলারকে উদ্দেশ্য করে দর্শকদের মধ্যে থেকে বর্ণবিদ্বেষী মন্তব্য এবং বাঁদরের মতো নকল আওয়াজ করার মাঝেই কলা ছোড়া হয়। অভূতপূর্বভাবে প্রতিবাদ জানান আলভেজ। ম্যাচের পর তিনি বলেন, “স্পেনে অনেক দিন ধরেই এটা সহ্য করতে হচ্ছে। তাই ব্যাপরটাকে মজা করেই সামলেছি।” বার্সা তারকার পাশে দাঁড়িয়েছে ক্লাবও। স্প্যানিশ ক্লাবের তরফে বিবৃতিতে জানানো হয়, “যেভাবে আলভেজকে অপমান করা হয়েছিল তাতে আমরা পুরোপুরি এই ঘটনায় ওর পাশে রয়েছি।” শুধু তাঁর ক্লাবই নয়, সতীর্থ নেইমার, আর্জেন্তিনার সের্জিও আগেরো, প্রাক্তন ব্রাজিল তারকা রবার্তো কার্লোসও সোশ্যাল নেটওয়ার্কে কলা খাওয়ার ছবি পোস্ট করে আলভেজের পাশে দাঁড়িয়েছেন।
নেইমার লিখেছেন, “আমরা সবাই বাঁদর। আমরা সবাই সমান। বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করুন।” আগেরো ব্রাজিলের এই তারকা ফুটবলার তার মেয়ে মার্তার সঙ্গে কলা খাওয়ার ছবি পোস্ট করে লিখেছেন, “আমার সতীর্থ ব্রাজিলের মার্তার সঙ্গে। বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করুন। আমরা সবাই সমান।” ঘটনায় নড়েচড়ে বসেছে স্প্যানিশ ফুটবলও। স্প্যানিশ মিডিয়া জানাচ্ছে ম্যাচ রেফারি ডেভিড ফার্নান্ডেজ বোরবালান ঘটনার উল্লেখ করতে পারেন তাঁর রিপোর্টে। স্পেনের ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনও সমাধান সূত্র খুঁজতে মঙ্গলবার বৈঠকে বসছে। গত বছর রিয়াল মাদ্রিদের বিরুদ্ধে কোপা দেল রে সেমিফাইনালেও আলভেজ একই অভিযোগ করেছিলেন। অভিযোগ উঠছে গত ১২ বছর ধরেই তিনি স্পেনে বর্ণবিদ্বেষের শিকার। প্রথমে সেভিয়া তার পর বার্সেলোনার জার্সি গায়েও ব্রাজিলীয় তারকাকে যা সহ্য করতে হচ্ছে।
তাই তিনি পরে বলেন, “খুব সহজে ছবিটা পাল্টাবে না। তবে ব্যাপারটাকে গুরুত্ব না দিলে ওদের উদ্দেশ্যও সফল হবে না।” শোনা যাচ্ছে সোমবার ভিয়ারিয়াল কলা ছোড়ায় অভিযুক্ত সমর্থককে চিহ্নিত করে আজীবন নির্বাসিত করেছে। তবে তাতে আলভেজের পাশে দাঁড়াতে বিশ্বজুড়ে শুভেচ্ছা আর সমর্থনের বন্যায় কোনও ভাঁটা পড়েনি। টটেনহ্যাম আর টোগোর স্ট্রাইকার এমানুয়েল আদেবায়োর বলেন, “দানিকে প্রচুর সম্মান। ফুটবলে বর্ণবিদ্বেষের কোনও জায়গা নেই।” লিভারপুলের মিডফিল্ডার লুকাস টুইট করেন, “গত কাল তোমার আচরণের জন্য অভিনন্দন। এই লড়াইয়ে আমরা তোমার পাশে রয়েছি।” প্রাক্তন বার্সা প্লেয়ার গ্যারি লিনেকার আবার বলেন, “দারুণ জবাব দিয়েছে দানি। বর্ণবিদ্বেষী যে কোনো প্রয়াস ব্যর্থ করুন।”

Facebook Comments