টঙ্গী থানার দুই কনস্টেবল প্রত্যাহার

0
20
Print Friendly, PDF & Email
police jacket back

সেনাসদস্যের ওপর হামলার অভিযোগে গাজীপুরের টঙ্গী থানার দুই পুলিশ কনস্টেবলকে মঙ্গলবার দুপুরে থানা থেকে জেলা পুলিশ লাইনে ক্লোসড করা হয়েছে। তারা হলেন-মো. আব্বাস  আলী  ও মো. বাবর  আলী। এ ঘটনায় থানার উপ-সহকারী পুলিশ পরিদর্শক আনোয়ারের বিরুদ্ধে একটি সাধারণ ডাইরী করা হয়েছে।

 

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, সাভার ক্যান্টনমেন্ট থেকে মঙ্গলবার সকালে মালভর্তি ১৬টি কাভার্ডভ্যান খাগড়াছড়ি ক্যান্টনমেন্টের উদ্দেশে রওনা হয়। পথে টঙ্গীর শিলমুন এলাকার টিএন্ডটি গেট এলাকায় সকাল পৌনে ৯টায় পুলিশের একটি টহল গাড়ির সঙ্গে সেনাসদস্যদের ভাড়া করা মালভর্তি একটি কাভার্ডভ্যানের ধাক্কা লাগে। এতে পুলিশের গাড়ীটি ক্ষতিগ্রস্থ হয়। পরে পুলিশ সদস্যরা সেনাবাহিনীর গাড়ীটিকে থামার জন্য সিগনাল দেয়। কিন্তু তা অমান্য করে সেনাসদস্যদের গাড়ীবহর এগিয়ে যেতে থাকে। এতে পুলিশ সদস্যরা উত্তেজিত হয়ে পিছু ধাওয়া করে টিএন্ডটি বাজার এলাকায় সেনাবাহিনীর গাড়ী বহরের পথরোধ করে। 

 

এ নিয়ে কাভার্ডভ্যানে সিভিল পোশাকে থাকা সেনাবাহিনীর সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার মো. শাহাদৎ হোসেনের সঙ্গে ওই দুই কনস্টেবলের কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে ওই সেনাসদস্য ভ্যান থেকে নেমে আসলে কনস্টেবল আব্বাস আলী তার হাতে থাকা শর্টগানের ওই সেনাসদস্যের পায়ে আঘাত করেন। এরপর গাড়ীবহরের পোশাক পরিধান করা অন্য সেনাসদস্যরা এসে পুলিশের ওপর চড়াও হয়। 

 

খবর পেয়ে টঙ্গী মডেল থানা পুলিশ পরিদর্শক ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এসময় আহত হয় তিন পুলিশ সদস্য বাবর আলী, আব্বাস আলী, উপ-সহকারী পুলিশ পরিদর্শক আনোয়ার হোসেন ও সেনাবাহিনীর সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার শাহদাৎ হোসেন। সেনাসদস্যদের সাথে পুলিশের ওই ঘটনার জের ধরে তাদের পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়। 

Facebook Comments