বিচ্ছিন্ন উত্তরবঙ্গ, আরো নয় জেলায় অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট

0
7
Print Friendly, PDF & Email
bus

ময়মনসিংহসহ আট জেলায় অনির্দিষ্টক‍ালের পরিবহন ধর্মঘট আহ্বান করেছে ঢাকা বিভাগীয় মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ।

সোমবার দুপুরে জুবলীঘাট এলাকায় ময়মনসিংহ জেলা পরিবহন মোটর মালিক সমিতি কার্যালয়ে এক বৈঠক শেষে পরিষদের আহ্বায়ক এবং এফবিসিসিআই’র পরিচালক আমিনুল হক শামীম বাংলানিউজকে এ তথ্য জানান।

নেত্রকোনা জেলা প্রশাসককে দ্রুত প্রত্যাহার, সিএনজি চালিত অটোরিকশা, মাহেন্দ্রা ত্রি-হুইলার, ইমা, রুট পারমিট বহির্ভূত এলাকায় চলাচল এবং রুট পারিমট দেওয়া বন্ধ, লিজ নেওয়া বিআরটিসি ও দ্বিতল বাস উপজেলা ভিত্তিক চলাচল বন্ধ, স্কেলের নামে ট্রাকের চাঁদাবাজি বন্ধ এবং সব ধরনের পুলিশি হয়রানি বন্ধ করা সহ ছয় দফা দাবিতে মঙ্গলবার সকাল থেকে ময়মনসিংহ, কিশোরগঞ্জ, শেরপুর, টাঙ্গাইল, নেত্রকোনা, জামালপুর, ঢাকা এবং গাজীপুরে ধর্মঘট আহ্বান করা হয়।

হাইওয়েতে অনুমোদনহীন যানবাহন চলাচল বন্ধসহ ছয় দফা দাবিতে রোববার থেকে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘটে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে সড়ক পথে উত্তরবঙ্গের সঙ্গে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশের যোগাযোগ ব্যবস্থা। বাসের সঙ্গে বন্ধ রয়েছে মালবাহী ট্রাক, লরিও।

এর আগে একই দাবিতে গত ১৫ মে রাজশাহী সড়ক পরিবহন গ্রুপ কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলন থেকে ২৯ ঘণ্টার পরিবহন ধর্মঘট আহ্বান করা হয়।

২০ মে বিকেল ৩টা থেকে ২১ মে রাত ৮টা পর্যন্ত একই দাবিতে প্রতিকী পরিবহন ধর্মঘটও পালন করা হয়। ওই দিন বিকেলে অনুষ্ঠিত শ্রমিক সমাবেশ থেকে একই দাবিতে ফের ৭২ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়ে পরিবহন নেতারা জানান, এর মধ্যে দাবি পূরণ না হলে ২৫ মে রোববার সকাল ৬টা থেকে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট শুরু হবে।

শনিবার দুপুরে বগুড়া সেফওয়ে মোটেলে শুরু হওয়া এক জরুরি সভায় মোটর মালিক গ্রুপ এবং মোটরশ্রমিক ইউনিয়ন একই দাবিতে সংহতি প্রকাশ করে পরিবহন ধর্মঘট আহ্বান করে।

পরিবহন নেতারা জানান, ছয় দফা দাবি মানা না হলে এরপর গোটা উত্তরবঙ্গ এবং সবশেষ গোটা দেশ অচল করে দেওয়া হবে। এবার কোনোভাবেই প্রশাসনের পক্ষ থেকে কেবল আলোচনা বা আশ্বাসে পরিবহন শ্রমিক ও মালিকদের এ আন্দোলন স্থগিত হবে না।

অনির্দিষ্টকালের এ ধর্মঘট সংক্রান্ত সমস্যা সমাধানে সোমবার বিকেলে রাজশাহীতে প্রশাসনের সঙ্গে মালিক শ্রমিকসহ সংশ্লিষ্টদের সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

এদিকে, নেত্রকোনায় সিএনজি চালিত অটোরিকশা চালক ও বাস শ্রমিকদের দ্বন্দ্বে রোববার দ্বিতীয় দিনের মতো অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট চলছে।

গত বুধবার অটোরিকশা চালকদের সঙ্গে বাস শ্রমিকদের কথা কাটাকাটি হয়। শুক্রবার বিকেলে বৈঠক ডেকে বিষয়টি মিমাংসা হলেও রাতে আবার অটোরিকশা চালকরা বাস ভাঙচুর করলে শ্রমিক ইউনিয়ন জেলার অভ্যন্তরীন সব রুটে শনিবার সকাল থেকে বাস চলাচল বন্ধ রাখার ঘোষণা দেয়।

অন্যদিকে, শনিবার সন্ধ্যায় টার্মিনাল এলাকায় পুলিশের সঙ্গে শ্রমিকদের সংঘর্ষ হলে ধর্মঘট আরও জোরদার হয়।

জেলার সব অভ্যন্তরীন রুটে ধর্মঘট অব্যাহত থাকায় বিড়ম্বনায় পড়েছেন যাত্রীরা।

Facebook Comments