ভোটাধিকার হরনের ক্ষমতা নেই শেখ হাসিনার-হান্নান শাহ

0
9
Print Friendly, PDF & Email
1401546908.jpeg

স্টাফ রিপোর্টার: ৩১ মে শনিবার বিকেলে কাপাসিয়া উপজেলা বিএনপির উদ্যোগে আয়োজিত বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৩৩ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে মিলাদ ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অবঃ) আ স ম হান্নান শাহ্ বলেছেন, গণতন্ত্রমনা দেশের জনগণের ভোটাধিকার হরণ করার কোন ক্ষমতা আওয়ামীলীগ বা শেখ হাসিনার নেই। বাকশাল কায়েমের মাধ্যমে বহু আগেই শেখ মুজিব আওয়ামীলীগের কবর দিয়েছিলেন। আওয়ামীলীগের জন্মদাতা শেখ মুজিব নয় মাওলানা ভাষানী। সঠিক ইতিহাস জাতীর কাছে তোলে ধরার কারনে তারেক রহমানকে পাগল বলা হচ্ছে, তারাই পাগল যারা ইতিহাস বিকৃত করছে। নারায়নগঞ্জ-ফেনিতে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে নিজেরাই বলি হচ্ছেন। অথচ এ দায় বিএনপির উপর চাপানোর চেষ্টা চলছে।

কাপাসিয়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি খলিলুর রহমান চেয়ারম্যানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন সেলিমের পরিচালনায় সাফাইশ্রীস্থ অস্থায়ী কার্যালয় প্রাঙ্গনে অন্যান্যের মাঝে আরো বক্তব্য রাখেন, কাপাসিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও গাজীপুর জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ্ব খন্দকার আজিজুর রহমান পেরা, গাজীপুর জেলা বিএনপিরসাধারণ সম্পাদক কাজী সায়্যেদুল আলম বাবুল, বিএনপি নেতা শাহ্ রিয়াজুল হান্নান, আব্দুল করিম বেপারী, সাইফুল ইসলাম খান দিলু, দেলোয়ার হোসেন মাষ্টার, আজগর হোসেন খান, নাজমুল হোসেন ভূঁইয়া, ফকির কামাল হোসেন, হোসেন সারোয়ার, ফরিদুল আলম বুলু, জুনায়েদ হোসেন লিয়ন, খুরশিদা মহসিন, আকরাম হোসেন রিপন প্রমূখ। এছাড়া উপজেলার ১১ টি ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সহ যুবদল, ছাত্রদল, মহিলাদল , স্বেচ্ছাসেবকদল, শ্রমিকদল, জাসাস নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।    

হান্নান শাহ্ আরো বলেন, শহীদ তাজউদ্দীনের ডায়রী থেকে তারই মেয়ের লেখা ‘নেতা ও পিতা’ বইতে লেখা স্পষ্ট উল্লেখ রয়েছে স্বাধীনতা ঘোষনা পত্রে শেখ মজিবুর স্বাক্ষর করেননি। তিনি সে সময় আতœরক্ষার্থে দেশদ্রুহীতা মামলার ভয়ে স্বেচ্ছায় পাকিস্তানে কারাবন্দি ছিলেন। শেখ হাসিনাকে দেশের মানুষ আর বিশ্বাস করেনা। সুরঞ্জিতকে দিয়ে কালো বিড়াল ধরতে গিয়ে নিজেরাই কালো বিড়ালের জালে আটকা পড়েছেন। এ দেশের জনগণ গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় সকলের অংশ গ্রহনে সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে এ বাকশালী সরকারকে বিদায় করবে। ১৯৬৬ সাল থেকেই জিয়াউর রহমানকে হান্নান শাহ্ চেনেন ও জানেন দাবী  করে তিনি বলেন, জিয়া ছিলেন একজন সৎ, নিষ্ঠা এবং আদর্শবান ব্যক্তি। জাতীয় স্বার্থ ক্ষুন্ন হয় এমন কোন কাজ তিনি করেননি। তারই ধারাবাহিকতায় খালেদা জিয়া দেশ ও জনগনের স্বার্থ উর্ধ্বে রেখে দেশ সেবায় এগিয়ে যাচ্ছেন। রমজানের পর খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে বৃহত্তর আন্দোলনের মাধ্যমে এ সরকারকে বিদায় করা হবে। তিনি দলের সকল পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের আগামী আন্দোলন সংগ্রামে শরিক হওয়ার আহবান জানান।

Facebook Comments
শেয়ার করুন