হাসপাতালের চুরির মালামাল ৪ বছর পর উদ্ধার

0
4
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার: একটি সিন্ডিকেট চক্র গভীর রাতে প্রায় এক কোটি টাকার মালামাল ৪ বছর আগে চুরি করে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় হাসপাতালের মালিক ডাঃ এম এ কাশেম ফারুকী ঢাকার সিএমএম আদালতে ৫জন কে অভিযুক্ত করে একটি চুরির মামলা করেন। মামলা সূত্রে জানা যায় ঢাকার ক্ষিলক্ষেত এলাকার পুরাতলী জামে মসজিদ রোডে আলহেরা টাওয়ারের ডাঃ এম এ কাশেম ফারুকী এশিয়া মেডিকেল সার্ভিসেস নামে একটি হাসপাতাল থেকে এক্সরে, ইসিজি, আলট্রাসোনোগ্রাফী, বায়োওকেমিষ্ট্র,এনালাইজার, অপারেশনের র্সবাধিক মেশিন, ২০টি এসি সহ প্রায় এক কোটি টাকার মালামাল গুলো কাজি নাজিম উদ্দিন, কাজি মানিক উদ্দিন, আয়ুব উদ্দিন বাশারী, আলাউদ্দিন পাটোয়ারীসহ ১০/১৫ জনের সহযোগিতায় চুরি করে পালিয়ে যায়। র্দীঘ ৪ বছর পর মামলা চলাকালীন সময়ে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কাজি নাজিম উদ্দিনের আস্তানা থেকে ক্ষিলক্ষেত থানা পুলিশ ১৫ মে প্রায় ৬০ লক্ষাধিক টাকার মালামাল উদ্ধার করে। পরে হাসপাতালের মালিক গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে বাকী মালামাল গাজীপুরের সালনা এলাকায় কাজি নাজিম উদ্দিনের কাছে রয়েছে। পরে ডাঃ কাশেম ফারুকী ১৮ মে ঢাকার এডিএম আদালতে ৯৮ ধারা একটি মামলা করেন। বিজ্ঞ আদালতের বিচারক মাকসুদা আক্তার মালামাল উদ্ধারের জন্য গাজীপুর আদালত কে র্নিদেশ প্রদান করেন। জয়দেবপুর থানার এসআই দুলাল আকন্দ ২৭ মে সালনা বাজারের সরকার সুপার র্মাকেটের দোতলা থেকে কাজি নাজিম উদ্দিনের তাকওয়া ডায়াগনষ্টিক এন্ড কনসালটেন্ট সেন্টার নামের হাসপাতালে চুরাই মালামালের সন্ধান পান পুলিশ। সরকার সুপার র্মাকেটের মালিক জানান র্দীঘ আটমাস ধরে ভাড়া নিয়ে ভাড়া পরিশোধ করেননি,এবং কাজি নাজিম উদ্দিন একই এলাকার শিমুতলী রোডের আব্দুল হালিম আকন্দের দোতলায় বাড়ির ভাড়াটিয়া তার ভাড়া বাসায়ও মালামাল রয়েছে। পুলিশ হাসপাতালের চুরাই মালামালের সন্ধান পাওয়ার পর ও কেন উদ্ধার করেন নি ? তা নিয়ে সালনা এলাকার লোকজন ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

Facebook Comments
শেয়ার করুন