মন্ত্রীত্বের লোভে পড়েছেন নেতারা: জিএম কাদের

0
14
Print Friendly, PDF & Email

ডেস্ক রিপোর্ট: জাতীয় পার্টির (জাপা) একই সঙ্গে সরকারে ও বিরোধী দলে থাকার তীব্র সমালোচনা করেছেন দলটির প্রেসিডিয়াম সদস্য জি এম কাদের বলেছেন,একই সঙ্গে স্বামী আবার একই সঙ্গে স্ত্রী—এভাবে সংসার হয় না।’ ২৫ জুন বুধবার দুপুরে রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে জাতীয় মৎস্যজীবী পার্টির সম্মেলন অনুষ্ঠানে জি এম কাদের এ কথা বলেন। তার বক্তব্যে ক্ষুব্ধ হয়ে অনুষ্ঠানস্থল ছেড়ে চলে যান পার্টির মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু। পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ এ সময় মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন। পরে হইচইয়ের মধ্য দিয়ে শেষ পর্যন্ত মৎস্যজীবী দলের সম্মেলনও পণ্ড হয়ে যায়। দলটির দ্বিমুখী অবস্থান বোঝাতে গিয়ে জি এম কাদের এও বলেন, ‘আপনি উরুগুয়ের স্ট্রাইকার, আবার ইতালির গোলকিপার—এটা হয় না।’ মৎস্যজীবী পার্টির ওই অনুষ্ঠানে জি এম কাদেরের আগে বক্তব্য দিতে ওঠেন দলের মহিলা সাংসদ খুরশীদা হক। তিনি বলেন, দীর্ঘদিন ধরে পার্টি করলেও তারা এত দিন কিছু পাননি। কর্মীরাও হতাশ ছিল। এবার রওশন এরশাদ বিরোধী দলের নেতা হওয়ায় তিনি সাংসদ হতে পেরেছেন। তার এমন বক্তব্যের সময় মঞ্চে থাকা এরশাদকে কিছুটা বিব্রত ভাব প্রকাশ করতে দেখা যায়। একপর্যায়ে এরশাদের ইশারায় পার্টির মহাসচিব খুরশীদাকে বক্তব্য সংক্ষেপ করার পরামর্শ দেন। খুরশীদার বক্তব্যের পর বক্তব্য দেওয়ার জন্য দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য জি এম কাদেরের নাম ঘোষণা করা হয়। কিন্তু জি এম কাদের প্রথমে বক্তব্য দিতে অস্বীকৃতি জানান। কয়েকবার অনুরোধের পর তিনি বক্তব্য দিতে আসেন। প্রসঙ্গত, জিএম কাদেরকে পার্টিতে মহাসচিব বাবলুর চেয়ে জ্যেষ্ঠ বিবেচনা করা হয়।

বক্তব্য দিতে গিয়ে জি এম কাদের বলেন, ‘মানুষ জাতীয় পার্টিকে কার্যকর বিরোধী দল হিসেবে দেখতে চায়। কিন্তু আমরা কি সে বিরোধী দল আছি? একসঙ্গে সরকার ও বিরোধী দলে থাকা সংবিধানের সঙ্গে যায় না। বাংলাদেশের রাজনীতির আবহে এটি পরিচিত না। আপনি উরুগুয়ের স্ট্রাইকার, আবার ইতালির গোলকিপার—এটা হয় না। আপনি একই সঙ্গে স্বামী আবার একই সঙ্গে স্ত্রী—এভাবে সংসার হয় না।’ জিএম কাদেরের বক্তব্যের এ পর্যায়ে মঞ্চ থেকে উঠে দাঁড়ান দলের মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ। তখন জি এম কাদের বলেন, ‘আমি তো কাউকে মন্ত্রিত্ব ছাড়তে বলছি না। মানুষ কার্যকর বিরোধী দল দেখতে চায়।’ জি এম কাদেরের এ ধরনের বক্তব্যে রাগ করে শেষ পর্যন্ত অনুষ্ঠানস্থল ছেড়েই চলে যান জিয়াউদ্দিন আহমেদ। অনুষ্ঠানস্থলেও শুরু হয় হইচই। এরপর এরশাদ খুব সংক্ষেপে বক্তব্য দেন। তিনি দলে ঐক্য বজায় রাখতে আহ্বান জানান।

Facebook Comments
শেয়ার করুন