কালিয়াকৈরে শ্রমিক অসন্তোষ: কারখানা বন্ধের ঘোষণা

0
22
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার: বেতন বৃদ্ধিসহ ১১দফা দাবিতে টানা তৃতীয় দিনের আন্দোলনের মুখে কালিয়াকৈর উপজেলার বাড়ইপাড়া এলাকাস্থ হেসং বিডি লিমিটেড নামক পোশাক তৈরী কারখানা অনির্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ। ফলে শ্রমিকরা কারখানার মেইন গেইটের বাহিরে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেছে। স্থানীয় একাধিক সূত্র জানায়, হ্যাচং বিডি লিমিটেড নামের পোশাক তৈরী কারখানার শ্রমিকরা ঈদের পর কাজে যোগদান করতে এসে জানতে পারে তাদের বেতন ও ওভার টাইম কমানো হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে শ্রমিকরা পিচ রেট বাড়ানো ও ওভার টাইমের দাবিসহ ৮দফা দাবিতে কারখানার শ্রমিকরা রোববার থেকে বিক্ষোভ চালিয়ে আসছে। যা সোমবার পর্যন্ত স্থায়ী হয়। এতে কোন সফলতা না পেয়ে শ্রমিকরা দাবীনামা বৃদ্ধি করে ৫ আগষ্ট মঙ্গলবার ১১দফা দাবি নিয়ে তৃতীয় দিনের মতো বিক্ষোভ ও কর্মবিরতী পালন করছে। শ্রমিকরা জানিয়েছে ৩ দিনের মধ্যে তাদের দাবিগুলো মেনে না নিলে অনশনে যাওয়ার ঘোষণ দেয়া হয়েছে ।

শ্রমিকদের দাবিগুলো হলো (১). কার্ড হাজিরা ৬শত টাকা দিতে হবে, (২). বাৎসরিক ছুটির টাকা দিতে হবে, (৩). ২০১৩ইং শ্রম আইন অনুযায়ী ৬হাজার ৮শত ২০টাকা দিতে হবে, (৪). শ্রম আইন অনুযায়ী সকল ছুটি দিতে হবে, (৫). প্রোডাকশনের আগে পিচ রেট দিতে হবে, (৬). ওভার টাইম এবং প্রোডাকশন বোনাস দিতে হবে, (৭). বহিরাগত কোন লোক কারখানার ভেতর প্রবেশ করতে পারবেনা ও কোন বহিরাগত লোক দ্বারা শ্রমিকদেরকে হয়রানি করা যাবে না এবং (৮).বহিরাগত কোন শ্রমিক কারখানার ভেতর ভাংচুর করবে না। (৯) সকাল সাড়ে ৭টার আগে কারখানার গেইট না খোলা (১০) ৫ম তলার পিএম হারুন অর রশীদ ও মাহি আলমকে বহিস্কার করার দাবিসহ ১১টি দাবি উল্লেখ সম্বলিত লিফলেট বিতরণ করে। এই দাবিগুলো কারখানা কর্তৃপক্ষ আগামী ২ দিনের মধ্যে মেনে না নিলে শ্রমিকরা আমরণ অনশনে যাওয়ার হুমকি দেয়।

শিল্প-পুলিশ গাজীপুর-২ এর ওসি মোঃ জাকির হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, স্যুয়েটার কারখানায় শ্রমিকদের কন্ট্রাকের মাধ্যমে কাজ করানো হয়ে থাকে। হ্যাচং বিডি লিমিটেড কারখানাতেও একই নিয়ম। কিন্তু শ্রমিকরা ওভারটাইম আবার চালু করার দাবিসহ ১১টি দাবি জানিয়ে শান্তিপুর্ণ কর্মবিরতী পালন করছে এবং আমরণ অনশনের হুমকি দেয়। পরে বাধ্য হয়ে কারখানা কর্তৃপক্ষ অনির্দৃষ্ট কালের জন্য ছুটি ঘোষনা করতে বাধ্য হয়ে মুল গেইটে একটি নোটিশ ঝুলিয়ে দিয়েছে। তবে যেকোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে কারখানায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

Facebook Comments
শেয়ার করুন