ভারতে ৫ নারীকে গণধর্ষণ তিন দুর্বৃত্তের

0
8
Print Friendly, PDF & Email

ডেস্ক রিপোর্ট: ভারতের বিহার রাজ্যের ভোজপুর জেলায় বন্দুকের নলের মুখে পাঁচ নারীকে ধর্ষণ করেছে তিন দুর্বৃত্ত। বুধবার রাতে ভোজপুর জেলার কুরমুরি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার ধর্ষিতাদের একজন পুলিশকে ঘটনাটি জানায়। এরপর শুক্রবার তিন ধর্ষকের দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ভোজপুর জেলা পুলিশ সুপার রাজেশ কুমার। ভোজপুর বিহার প্রদেশের রাজধানী পাটনা থেকে ৬০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। ধর্ষিতাদের প্রত্যেকেই ছিল টোকাই। তারা পুরোনো কাপড় সংগ্রহ করে তা বিক্রি করতো। তারা ওই জেলার ডুমারিয়া গ্রামের বাসিন্দা। বুধবার সন্ধ্যায় এক ডিলারের কাছে তাদের সংগৃহীত পুরোনো কাপড় বিক্রি করার জন্য ওই পাঁচ নারী কুরমুরি গ্রামে যান। কিন্তু রাত হয়ে যাওয়ায় তারা নিজ গ্রামে না ফিরে সেখানেই থেকে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। ওই রাতেই তিন পুরুষ বন্দুক ঠেকিয়ে তাদের ধর্ষণ করেন। ধর্ষণের পর ঘটনাটি কাউকে না জানানোর জন্যও তাদেরকে হুমকি দেয় ওই তিন ধর্ষক। নয়তো তাদেরকে আরও নির্মম পরিণতি ভোগ করতে হবেও হুঁশিয়ারি দেয় ওই তিন দুর্বৃত্ত। ধর্ষিতারা জানান, ওই তিন দুর্বৃত্ত বন্দুকের নলের মুখে তাদেরকে অপহরণ করে একটি নির্জন স্থানে নিয়ে যায়। এরপর দড়ি দিয়ে বেঁধে তাদের ধর্ষণ করা হয়। তাদেরকে প্রথমে জোর করে মদ পান করানো হয়। এরপর ওই তিন দুর্বৃত্ত তাদের পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এসময় চার-পাঁচজন লোক দূর থেকে পুরো ঘটনাটি নির্বিকার ভঙ্গিতে দাঁড়িয়ে-দাঁড়িয়ে দেখছিল। এ ঘটনার প্রতিবাদে শুক্রবার সকালে কয়েকশত মানুষ বিহার রাজ্যের ফতেহপুর-শিকারহট্ট মহাসড়ক অবরোধ করে দোষীদের অবিলম্বে গ্রেপ্তারের দাবি জানান। এরপরই মূলত পুলিশ ধর্ষকদের গ্রেপ্তারে তড়িৎ পদক্ষেপ গ্রহণ করে। পুরো ঘটনাটি তদন্ত করে শিগগিরই ন্যায়বিচার নিশ্চিত করা হবে বলেও জানিয়েছেন ভোজপুর জেলা পুলিশ সুপার রাজেশ কুমার।

Facebook Comments
শেয়ার করুন