ফের ১৩ দফা সামনে আনবে হেফাজত

0
19
Print Friendly, PDF & Email
sofi 39880

ডেস্ক রিপোর্ট: সংবিধানে আল্লাহর ওপর আস্থা ও বিশ্বাসের নীতি পুনঃস্থাপন, ধর্ম অবমাননার জন্য সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ডের বিধান করে আইন পাসসহ ১৩ দফা দাবি নতুন করে সামনে আনার ব্যাপারে নিজেদের মধ্যে আলোচনা করছেন হেফাজত নেতারা। এ নিয়ে হজ পালনরত হেফাজতের আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী সৌদি আরব থেকে ফোনে শীর্ষ কয়েকজন নেতার সাথে কথা বলেছেন। বিশেষ করে হজ ও মহানবী সা: সম্পর্কে আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী লতিফ সিদ্দিকীর কটূক্তির খবর জেনে আল্লামা শফী ভীষণ ক্ষুব্ধ হয়ে সংগঠনের নেতাদের আন্দোলনে সক্রিয় হওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন। তারই পরিপ্রেক্ষিতে হেফাজত বিক্ষোভ মিছিলের কর্মসূচি হাতে নেয়। দেশে ফেরার পর আল্লামা শফী সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে দেশের শীর্ষস্থানীয় আলেমদের সাথে বৈঠক করতে পারেন বলেও জানা গেছে। হেফাজত সূত্র জানিয়েছে, হজ ও মহানবী সা: সম্পর্কে আবদুল লতিফ সিদ্দিকীর বিরূপ মন্তব্যের খবর জানার পর আল্লামা শফী ঢাকা ও চট্টগ্রামে আন্দোলনে সক্রিয় ভূমিকা পালনকারী শীর্ষস্থানীয় কয়েকজন নেতার সাথে ফোনে কথা বলেছেন। প্রতিক্রিয়ায় তিনি তাদের বলেছেন, শাহবাগের আন্দোলনের সাথে সম্পৃক্ত নাস্তিকদের চেয়েও মারাত্মক ধর্ম অবমাননা করেছেন লতিফ সিদ্দিকী। এটা কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না। শান্তিপূর্ণ উপায়ে এর প্রতিবাদে আন্দোলন করার জন্য তিনি নেতাদের নির্দেশ দেন।

এরপরই হেফাজত ঢাকা ও চট্টগ্রামে বেশ কিছু কর্মসূচি পালন করে। হাটহাজারীতে বিশাল সমাবেশ করে। শুক্রবার সারা দেশে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করে। তার আগে ঢাকায় সংবাদ সম্মেলন করে বৃহস্পতিবার বায়তুল মোকাররম উত্তর গেটে বিক্ষোভ সমাবেশ করে। হেফাজত নেতারা লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেফতার করে ফাঁসিতে ঝুলানোর দাবির পাশাপাশি ধর্ম অবমাননার জন্য সর্বোচ্চ শাস্তির বিধান করে আইন পাসের দাবিও জানায়। এটি হেফাজতের ১৩ দফা দাবির দ্বিতীয় দাবি। হেফাজতে ইসলামের সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী এ ব্যাপারে বলেন, লফিত সিদ্দিকীর ধর্ম অবমাননার বিষয় নিয়ে হেফাজতের আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী ভীষণ ক্ষুব্ধ হয়েছেন। তিনি এর কঠোর ভাষায় প্রতিবাদ করার নির্দেশনা দিয়েছেন। টেলিফোনে আল্লামা শফীর সাথে কথা হয়েছে জানিয়ে মাওলানা ইসলামাবাদী বলেন, লতিফ সিদ্দিকী মূলত মুরতাদ হয়ে গেছেন। ইসলামে তার শাস্তি মৃত্যুদণ্ড। তাকে গ্রেফতার করে যথাযথ শাস্তির ব্যবস্থা না করলে হেফাজত ১৩ দফা নিয়ে মাঠে নামতে বাধ্য হবে।

তিনি বলেন, শাহবাগী নাস্তিকদের বিরুদ্ধে আন্দোলনের একপর্যায়ে ১৩ দফা দাবির আন্দোলন শুরু হয়। তখন হেফাজতের ১৩ দফা দাবি মেনে নিলে আজকে নতুন করে সরকারের কেউ ধর্ম অবমাননার সাহস পেত না। হেফাজতের অন্যতম যুগ্ম মহাসচিব মুফতি ফয়জুল্লাহর সাথে ফোনে আল্লামা শফীর কথা হয়েছে। এ ব্যাপারে মুফতি ফয়জুল্লাহ বলেন, লতিফ সিদ্দিকীর ধর্ম অবমাননার ঘটনার বিরুদ্ধে হেফাজতের আমির কঠোর প্রতিবাদ করার নির্দেশনা দিয়েছেন। সর্বোচ্চ শাস্তির আইনের দাবিসহ হেফাজতের ১৩ দফা দাবির বিষয়টি সামনে আনতে বলেছেন। তিনি দেশে ফেরার পর পরিবেশ পরিস্থিতির আলোকে আরো কর্মসূচি দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন। মুফতি ফয়জুল্লাহ বলেন, এ দেশের ধর্মপ্রাণ মানুষকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে নাস্তিক মুরতাদরা যেভাবে ইসলাম, মহানবী এমন কি ইসলামের দাওয়াতি সংগঠন তাবলিগ জামাত সম্পর্কে কটূক্তি করছেন তা কোনোভাবেই সহ্য করা যায় না। সরকার এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিলে তৌহিদি জনতা রাস্তায় নেমে আসতে বাধ্য হবে।

এ ব্যাপারে হেফাজতের কেন্দ্রীয় মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী বলেন, শাহবাগী নাস্তিকদের বিরুদ্ধে হেফাজত আন্দোলন করেছে। হেফাজতের আন্দোলনে এ দেশের কোটি কোটি মানুষ অংশ নিয়ে প্রমাণ করেছে এই দেশে ধর্ম অবমাননাকারীদের স্থান নেই। হেফাজতের আন্দোলনের একপর্যায়ে সরকার শাপলা চত্বরে পুলিশ বাহিনী দিয়ে হামলা করে আমাদের ক্ষতিগ্রস্ত করেছে। তারা নানাভাবে আমাদের নির্যাতন হয়রানি করেছে এবং করছে। কিন্তু তাই বলে হেফাজতের আন্দোলন শেষ হয়ে যায়নি এবং যাবে না। কিভাবে আন্দোলনকে সামনে নিয়ে যাওয়া যায় সে ব্যাপারে হেফাজত আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফীও চিন্তা করছেন। তিনি আমাদের সাথে এ নিয়ে কথা বলছেন। হেফাজত নাস্তিক মুরতাদদের বিরুদ্ধে মাঠে ছিল; সামনেও মাঠে থাকবে ইনশাল্লাহ।

Facebook Comments
শেয়ার করুন