গাজীপুরে ৯ প্রতারক গ্রেপ্তার

0
56
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার: গাজীপুর মহানগরের কোনাবাড়ী কাশিমপুর এলাকায় মাকসুদা মঞ্জিল নামে এক ভবনে অভিযান চলিয়ে ৯ প্রতারক কে গ্রেফতার করে র‌্যাব-৪। গ্রেপ্তারকৃতরা হল-মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম তুষার (২৪), মোহাম্মদ আবুল কালাম আজাদ (৩৫), মোহাম্মদ শাহাবুল ইসলাম (৩২), মোহাম্মদ শাহীন আলম (২৩), মোহাম্মদ সাইফুর রহমান (৩০), মোহাম্মদ আলমগীর (২৫), মোহাম্মদ লিমন (২৮), মোহাম্মদ সুইট (২৪) ও মোহাম্মদ আবু তাহের মাসুম (২৮)। তাদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা সকলেই ভুয়া এমএলএম কোম্পানির সদস্য। র‌্যাব-৪ এর অপারেশন অফিসার ও সহকারী পুলিশ সুপার বদরুল আলম বলেন, গ্রেপ্তারদের জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, তারা চাকরি দেয়ার জন্য এম-টাস ও বি,ডি লিমিটেডে নামের দুটি ভুয়া প্রতিষ্ঠান খোলে। এজন্য তারা জয়দেবপুর থানার কোনাবাড়ী কাশিমপুর রোডের মাকসুদা মঞ্জিলের পঞ্চম তলায় বাসা ভাড়া নেয়। গ্রাম থেকে আসা বেকার যুবকদের আটকে রেখে নির্যাতন করে ভয়ভীতি দেখিয়ে একটি খালি স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নিত এবং স্বাক্ষর না দিলে তাদেরকে বিভিন্নভাবে ক্ষতি করার হুমকি দিত। চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে প্রার্থীর নিকট থেকে প্রথমে নগদ ২৮ হাজার টাকা আদায় করত। পরে তাদেরকে ওই কোম্পানির মালামাল বিক্রয় প্রতিনিধি হিসেবে নিয়োগ দেয়া হবে বলে প্রতিশ্রুতি দেয়া হত। টাকা জমা হলে কোম্পানির সদস্যরা নিয়োগ প্রাপ্ত প্রার্থীদেরকে জানায় যে, তাদের কোনো মালামাল বিক্রি করার পদ্ধতি নেই বরং এই কোম্পানির মূল কার্যক্রম হচ্ছে, যেই প্রার্থীকে ওই  কোম্পানিতে নিয়োগ দেয়া হয়েছে সে একইভাবে আরও ২ জন প্রার্থীকে ওই কোম্পানিতে ভর্তির জন্য আনতে হবে। সে নতুন ২ জন প্রার্থী ভর্তি করাতে পারবে। সে ওই প্রাথীদের্র জমা করা ২৮ হাজার টাকা থেকে সাড়ে ৩ হাজার টাকা করে মোট ৭ হাজার টাকা বোনাস পাবে। এরমধ্যে কোনো প্রার্থী তার টাকা ফেরত চাইলে কোম্পানির সদস্যরা তাকে মারধর করত। তাদের কাছ থেকে একটি খালি স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর রেখে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে নিরব থাকতে বাধ্য করত। কোম্পানির সদস্যরা তাদের কোম্পানির এই সমস্ত প্রতারণার বিষয় যাতে ফাঁস না হয় সে জন্য নিয়োগ করা প্রার্থীদেরকে স্বাধীনভাবে কোম্পানির বাইরে চলাফেরা করতে  দেয়া হতো না । ওই কোম্পানির সদস্যরা  নিয়োগ করা প্রার্থীদেরকে দৈনিক খাওয়া বাবদ ৫০টাকা করে দেয়া হতো এবং একটি নিম্মমানের জায়গায় থাকার ব্যবস্থা করত। র‌্যাব কর্মকর্তা বদরুল আলম বলেন, সেখানে অভিযান চালিয়ে ২০ টাকার ২০টি, ৩০ টাকার ৫টি, ৫০ টাকার ৩০টি, ১০০ টাকার ১টি মোট ৫৬টি বিভিন্ন ব্যক্তির স্বাক্ষরিত গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার লিখিত ফাঁকা স্ট্যাম্প, এম-টাস বি.ডি লিমিটেডের অঙ্গীকার নামা, ১টি ল্যাপটপ, ১টি এম-টাস বি.ডি লিমিটেডের বিজ্ঞাপন ব্যানার উদ্ধার করা হয়েছে।

Facebook Comments
শেয়ার করুন