কাপাসিয়ায় ৮ বছরের শিশুকে শ্লীলতাহানীর চেষ্টা, আটক ১

0
16
Print Friendly, PDF & Email
img-single 12046fffffff

স্টাফ রিপোর্টার: কাপাসিয়া মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেনিতে পড়ুয়া শিশু (৮) ১৩ অক্টোবর সোমবার সকালে শহরের নতুন বাসস্টেন্ড এলাকার হামিউস সুন্নাহ মাদ্রাসায় আরবি পড়তে গেলে শিক্ষক নূরুল্লাহ (২৪) শিশুটিকে জোড়পূর্বক শ্লীলতাহানী ঘটায় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এলাকাবাসী মাদ্রাসা শিক্ষক নূরুল্লাহ্কে আটক করে পুলিশে দিয়েছে। শিক্ষকের বাড়ি ময়মনসিংহ এলাকায়। পারিবারিক ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শিশুটি প্রতিদিনের মত সকালে ঘুম থেকে উঠে আরবি পড়তে বাড়ির পাশে হামিউস সুন্নাহ মাদ্রাসায় যায়। সুযোগ বুঝে নূরুল্লাহ শিশুটিকে তার ব্যাক্তিগত রুমে নিয়ে যায়। কিছুক্ষন পর শিশুটি তার মায়ের কাছে গিয়ে কাঁদতে কাঁদতে তার অঙ্গের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন দেখিয়ে শ্লীলতাহানির ঘটনা খুলে বলেন। ঘটনা শুনে তার মা মাদ্রাসায় হাজির হলে ওই শিক্ষক দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করে। খবর পেয়ে স্থানীয়রা উত্তেজিত হয়ে শিক্ষককে অবরোদ্ধ করে রাখে। পরে কাপাসিয়া থানা পুলিশ শিক্ষককে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। শিশুটির মা জানান, তার ছোট শিশুটির যা হওয়ার হয়েছে এর চেয়ে বেশি আর কিছুই চাই না। জানাজানি হলে পরবর্তীতে সমস্যা আরো বাড়বে। কাপাসিয়া মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফেরদৌস আরা দিপু জানান, শ্লীলতাহানীর স্বীকার শিশুটি তার বিদ্যালয়ের ৩য় শ্রেনির মেধাবী ছাত্রী। এ ঘটনার তীব্র নিন্দা এবং অভিযুক্তের বিচার দাবী করছি। একটি মহল ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। কাপাসিয়া থানার এস আই সিদ্দিক জানান, শিশুটির শ্লিলতাহানীর চেষ্টার ঘটনার অভিযোগে  নুরুল্লাহকে আটক করা হয়েছে তবে শিশুটির পরিবার তার ভবিষ্যতে ক্ষতির আশংকার কথা চিন্তা করে এ পর্যন্ত কোন লিখিত অভিযোগ দেয়নি।

Facebook Comments
শেয়ার করুন