হরতালে সচিবালয়ে অফিস করছেন প্রধানমন্ত্রী

0
19
Print Friendly, PDF & Email
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, ফাইল ছবি

ডেস্ক রিপোর্ট: মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় জামায়াতে ইসলামীর আমীর মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসির আদেশে আবারও অস্থিতিশীল হয়ে উঠেছে দেশ। এ রায়ের প্রতিবাদে বৃহস্পতি, রবি ও সোমবার সারা দেশে হরতাল ডেকেছে দলটি। বিভিন্ন জায়গায় প্রতিবাদ মিছিল ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। বিভিন্ন স্থানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষও ঘটেছে। এদিকে নাশকতা ঠেকাতে দলটির নেতাকর্মীদের গণগ্রেপ্তার শুরু করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। বিভিন্ন জেলায় বাড়তি নিরাপত্তা নিতে বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। গতকাল দেশের বিভিন্ন স্থানে গ্রেপ্তার হয়েছেন শতাধিক নেতাকর্মী। অন্যদিকে এ রায়ে বিভিন্ন স্থানে আনন্দ মিছিল করেছে ১৪ দল ও আওয়ামী লীগ। রায়কে কেন্দ্র করে বুধবার বিকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে জামায়াত-শিবিরকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে। এতে দুই বিজিবি সদস্যসহ অন্তত ৩৫ জন আহত হয়েছেন। বিকাল ৩টায় জামায়াত-শিবিরকর্মীরা মিছিল শেষে শিবগঞ্জ বাজারের জামে মসজিদের কাছে পথসভা করছিল। পুলিশ বাধা দিলে সংঘর্ষ বাধে। পরে পরিস্থিতি মোকাবিলায় বিজিবি সদস্যরা পুলিশকে সহায়তায় এগিয়ে আসে। একপর্যায়ে জামায়াত-শিবিরকর্মীরা পুলিশ-বিজিবিকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপসহ প্রায় ২৫টি বোমার বিস্ফোরণ ঘটায়। পুলিশ-বিজিবি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে শতাধিক রাউন্ড শটগানের গুলিবর্ষণ করে। প্রায় দেড় ঘণ্টা সংঘর্ষ চলার পর বিকাল সাড়ে ৪টায় পরিস্থিতি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে আসে।

রাজশাহীতে জামায়াত-শিবিরের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে জামায়াত-শিবিরের অন্তত ৫ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। রায়ের প্রতিবাদে দুপুরে রাজশাহী নগরীতে বের হওয়া বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশ বাধা দিলে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এদিকে নগরীর মতিহার থানার দেওয়ানপাড়া এলাকায় মিছিলের প্রস্তুতিকালে জামায়াত-শিবিরের অন্তত ৫ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, নিজামীর ফাঁসির রায় ঘোষণার পর পরই এর প্রতিবাদে নগরীর রাজপাড়া থানার কোর্ট স্টেশনের হড়গ্রাম এলাকায় বিক্ষোভ বের করেন জামায়াত-শিবিরকর্মীরা। পরে তারা রাজশাহী-চাঁপাই নবাবগঞ্জ মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাদের ছত্রভঙ্গ করতে রাবার বুলেট ও টিয়ার শেল ছোড়ে। বেশ কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট ও শটগানের গুলি ছোড়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয় পুলিশ। এ সময় অন্তত ৫ জামায়াত-শিবিরকর্মী আহত হয়েছেন বলে দাবি করেছেন নেতারা। দেওয়ানপাড়া এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল বের করার চেষ্টাকালে জামায়াত-শিবিরকর্মী সন্দেহে ৫ জনকে আটক করে পুলিশ। এদিকে মঙ্গলবার রাত থেকেই র‌্যাব, পুলিশ ও বিজিবি’র যৌথ টহল শুরু হয়েছে। রাতে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় চালানো হয়েছে বিশেষ অভিযান।

রায়ের প্রতিবাদে নাটোরে মিছিল-সমাবেশ করেছে জেলা ও উপজেলা জামায়াতে ইসলামী। বিকাল সাড়ে তিনটার দিকে শহরের মাদরাসা মোড় থেকে মিছিল বের করে শহর জামায়াত। ভারপ্রাপ্ত শহর আমীর অধ্যক্ষ রাশেদুল ইসলাম রাসেদ, জেলা ছাত্রশিবিরের সভাপতি আলমগীর হোসেন ও সাবেক সভাপতি আলী আল মাসুদ মিলন মিছিলে নেতৃত্ব দেন। অন্যদিকে রায় ঘোষণার পরপরই একই স্থানে সদর আসনের এমপি শফিকুল ইসলাম শিমুলের নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করেছে জেলা আওয়ামী লীগ। এর আগে নাশকতার আশঙ্কায় জামায়াতের ৯ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতব্যাপী বিশেষ অভিযান চালিয়ে জেলার বিভিন্ন স্থানে তাদের আটক করা হয়। এদিকে জেলার আইনশৃঙ্ঘলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে দুই প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। সাতক্ষীরা জেলায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৪৯ জামায়াত-শিবিরকর্মীকে আটক করেছে। জেলার সাতটি উপজেলার ৮টি থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে পুলিশ তাদের আটক করে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে জামায়াতে ইসলামীর ৪৯ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা করেছে পুলিশ। সরকারি কাজে বাধা, আইনশৃঙ্খলার অবনতি ও বিস্ফোরকদ্রব্য বহনের অভিযোগে মঙ্গলবার রাতে এ মামলা হয়। গত দু’দিনে পুলিশ জামায়াতের পাঁচ নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে। গতকাল সকালে কালিকচ্ছ বাজারের নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে জামায়াত নেতা মো. হাসান মিয়া প্রকাশ শাহের আলীকে (৩৭)-কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ ছাড়া ঘটনাস্থল থেকে উপজেলার কালীকচ্ছ ইউনিয়ন শাখা জামায়াতের সম্পাদক মো. জামাল উদ্দিন (৩৫) ও কর্মী মো. শাহিন মিয়াকে (২৮) ও রাতে অভিযান চালিয়ে উপজেলার নোয়াগাঁও ইউনিয়ন জামায়াতের সভাপতি আবদুল মওলা (৪৫) ও শাহবাজপুর ইউপি জামায়াতের সেক্রেটারি আলম মিয়াকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মুন্সীগঞ্জ শহরের দক্ষিণ ইসলামপুর এলাকা থেকে জামায়াত নেতা আবদুর রশীদ মুন্সী (৪৫)কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তিনি শহর জামায়াত ইসলামীর প্রচার সম্পাদক। সিরাজগঞ্জ ও উল্লাপাড়ায় জামায়াত ও বিএনপির ৪ নেতাকর্মীকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। এদিকে, নিজামীর রায়পরবর্তী পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বিজিবি’র পাশাপাশি র‌্যাব ও পুলিশের টহল জোরদার করা হয়েছে। এদিকে রায় ঘোষণার পরপরই জেলার এনায়েতপুর থানা জামায়াতের নেতাকর্মীরা মণ্ডলপাড়া থেকে একটি লাঠি মিছিল বের করেন। মিছিলটি এনায়েতপুর হাট চত্বরে এসে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মিলিত হয়।

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে পুলিশের বিশেষ অভিযানে ১৫ জন গ্রেপ্তার হয়েছেন। মঙ্গলবার রাত থেকে গতকাল সকাল পর্যন্ত উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে এদের গ্রেপ্তার করা হয়। দৌলতপুর থানার ওসি এনামুল হক জানান, দৌলতপুরের বিভিন্ন এলাকায় পুলিশ বিশেষ অভিযান চালিয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় জিআর মামলার ৮ জন, সিআর মামলার ৫ জন এবং নিয়মিত মামলার দু’জনসহ ১৫ জন গ্রেপ্তার হয়েছেন। কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে দুই জামায়াত-শিবির নেতাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার গভীর রাতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাদের নিজ বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে। বুধবার সকালে তাদের জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

রায় প্রত্যাখ্যান করে এবং হরতালের সমর্থনে লক্ষীপুর শহরের মিয়ার রাস্তার মাথায়, চকবাজার, বাস টার্মিনাল, উত্তর তেমুহনী, আলীয়া মাদরাসা, দালাল বাজার, জকসিন, বটতলী, চন্দ্রগঞ্জ বাজারসহ রায়পুর, রামগতি, রামগঞ্জসহ জেলার বিভিন্ন স্থানে ঝটিকা মিছিল বের করেছে জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা। এ সময় শহরের আলীয় মাদরাসা এলাকায় শিবিরের নেতাকর্মীরা তিনটি লেগুনা ও দু’টি অটোরিকশা ভাঙচুর করে। এ ছাড়া উত্তর তেমহুনী এলাকায় দু’টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করে। পুলিশ সুপার শাহ মিজান সাফিউর রহমান জানান, নাশকতার আশঙ্কা জেলাজুড়ে নেয়া হয়েছে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা। শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে অতিরিক্ত পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাব ও তিন প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে।

ফেনীতে জামায়াতের দুই আমীরসহ ১৩ জনকে পুলিশ আটক করেছে। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গতকাল সকাল থেকে পুলিশ ও র‌্যাবের পাশাপাশি দুই প্লাটুন বিজিবি’র টহল জোরদার করা হয়। মঙ্গলবার রাতে ও বুধবার ভোরে জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে নাশকতার অভিযোগে দাগনভূঁঞা উপজেলা ও পৌরসভা জামায়াতের দুই আমীরসহ ১৩ জনকে পুলিশ আটক করেছে। এদিকে মানবতাবিরোধী অপরাধে জামায়াতের আমীর মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসির রায়ের ঘোষণার পর ফেনীতে যুবলীগ আনন্দ মিছিল করেছে।

ফাঁসির রায়ের প্রতিবাদে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন উপজেলা জামায়াতের নেতাকর্মীরা। এসময় পুলিশ মিছিলে গুলি করলে ছোটাছুটি করতে গিয়ে ৬ জামায়াত কর্মী আহত হন। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীর রায়ের প্রতিবাদে গতকাল দুপুর দেড়টার সময় বাড়বকুণ্ড বাজারে জামায়াত কর্মীরা মিছিল করার চেষ্টা করলে পুলিশ গুলি চালিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

জামায়াতে ইসলামী মৌলভীবাজার জেলা শাখা গতকাল বিকালে শহরে মিছিল করেছে। এমবি-বিলাশের সামনে থেকে মিছিল শুরু করে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে পশ্চিম বাজার পয়েন্টে গিয়ে সমাবেশে মিলিত হয়। এদিকে মৌলভীবাজার সদর আওয়ামী লীগ ও জেলা ছাত্রলীগ যৌথ উদ্যোগে গতকাল বিকালে জামায়াত নেতা মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসির রায়ে আনন্দ মিছিল করা হয় শহরে।

জামায়াতে ইসলামীর আমীর মতিউর রহমান নিজামীর মৃত্যুদণ্ডের প্রতিবাদে এবং হরতালের সমর্থনে নওগাঁয় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে জামায়াতে ইসলামী নওগাঁ জেলা শাখার নেতারা। দুপুর ২টার দিকে জামায়াতে ইসলামী নওগাঁ জেলা শাখার আমীর মো. আবদুর রাকিবের নেতৃত্বে শহরের তাজের মোড় থেকে একটি বিশাল বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। পরে সেখানে প্রায় আধা ঘণ্টা নওগাঁ-বগুড়ার মহাসড়ক অবরোধ করে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে তারা।

মেহেরপুর জেলায় বিশৃঙ্খলা এড়াতে বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। কুষ্টিয়া ৪৭ বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)’র দুই প্লাটুন বিজিবি সদস্য ভোর ছয়টা থেকে টহল শুরু করেছে বলে জানান মেহেরপুর জেলা প্রশাসক মাহমুদ হোসেন।

সুনামগঞ্জে রায়কে কেন্দ্র করে নাশকতার আশঙ্কায় বিজিবি, র‌্যাব ও পুলিশের একাধিক টিম পৃথকভাবে টহল অব্যাহত রেখেছে। গতকাল সকাল থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর এ টহল অব্যাহত রয়েছে। ছাতক ও জগন্নাথপুর থেকে জামায়তের দুই কর্মীকে আটক করে পুলিশ। সুনামগঞ্জ-৮ বিজিবি’র অধিনায়ক লে. কর্নেল গোলাম মহিউদ্দিন জানান, সুনামগঞ্জ পৌর শহরের এক প্লাটুন ও ছাতকের গোবিন্দগঞ্জ এলাকায় এক প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। সকাল থেকে বিজিবি শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে টহল দেয়। র‌্যাবের দুই প্লাটুন সদস্য ৬টি দলে বিভক্ত হয়ে শহরে টহল দেয়। এদিকে, রায়ের পক্ষে-বিপক্ষে মিছিল হয়েছে শহরে।

বুধবার দুপুরে শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ময়মনসিংহ শহর শাখা। শহর জামায়াতের আমীর মাওলানা মোজাম্মেল হক আকন্দের নেতৃত্বে শহরের চড়পাড়া মোড় থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়ে প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে পূরবী সিনেমা হলের সামনে গিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তারা অবৈধ সরকারের অবৈধ রায় না মানার ঘোষণা দিয়েছেন।

ফাঁসির রায় ঘোষণার প্রতিবাদে খুলনা মহানগরী শাখার উদ্যোগে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ মিছিল হয়। মহানগর আমীর মাওলানা আবুল কালাম আজাদের নেতৃত্বে এ মিছিলে ছিলেন মোস্তাফিজুর রহমান টিংকু, মিম মিরাজ হোসাইন, হাদিসুর রহমান, আবু বকর সিদ্দিক, তানভির আহম্মেদ, মনিরুল ইসলাম, ইমরান খান, নাসির উদ্দিন, মো. হাসান, আতিকুল্লাহ, আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।

যুদ্ধাপরাধের দায়ে দলের আমির মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসির রায়ের প্রতিবাদে জামায়াতের ডাকা হরতালে সচিবালয় এলাকায় কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হেয়েছে। তবে হরতালের প্রথম দিনে সচিবালয়ে অফিস করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অন্যদিনের মতোই স্বাভাবিক কাজকর্ম চলছে।সচিবালয়ে হরতালের তেমন কোনো প্রভাব পড়েনি  ।

রায়ের পর ভারপ্রাপ্ত আমির মকবুল আহমাদ ও ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান গতকাল বুধবার এক বিবৃতিতে এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

তিন দিন হরতালের মধ্যে প্রথম দফায় বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে শুক্রবার সকাল ৬টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টা হরতাল হবে।

এছাড়া দ্বিতীয় দফায় রবিবার সকাল ৬টা থেকে মঙ্গলবার সকাল ৬টা পর্যন্ত টানা ৪৮ ঘণ্টা হরতাল করার ঘোষণা দিয়েছে দলটি।

এদিকে সকাল সাড়ে ১০টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় পরির্দশন এবং অফিস করছেন।

বৃহস্পতিবার ভোর ৬টা থেকেই সচিবালয়ের আশপাশে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।চারপাশে দেখা যায় পুলিশের টহল।

সচিবালয়ের প্রবশেমুখে জিরো পয়েন্টের দিকে রাস্তা খোলা থাকলেও সেখানে উল্লখযোগ্য সংখ্যক নিরাপত্তাকর্মী রাখা হয়।

গত ২৯ এপ্রিল ১৮ দলীয় জোটের হরতালে কড়া পুলিশ পাহারার মধ্যেই সচিবালয়ে দুটি হাতবোমার বিস্ফোরণ ঘটে। এরপর থেকেই বিএনপি বা জামায়াতে ইসলামীর হরতাল বা অন্যান্য কর্মসূচিতে সচিবালয় একালায় কড়া নিরাপত্তা নেয়া হয়।

ভোর থেকেই সচিবালয়ের সামনের রাস্তায় কাঁটাতারের বেড়া দিয়ে যানবাহন নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে। সচিবালয়ের স্টিকারযুক্ত গাড়ি দেখে দেখে এ সড়কের একাংশ দিয়ে যানবাহন ঢুকতে ও চলতে দেয়া হয়। হাঁটাচলার ক্ষেত্রেও ছিল কড়াকড়ি।

আব্দুল গনি রোডের সচিবালয় সংলগ্ন রাস্তায় যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে।

সচিবালয় ঘুরে দেখা যায়, অন্যদিনের মতো বৃহস্পতিবার ও স্বাভাবিক গতিতে প্রশাসনিক কার্যক্রম চলেছে। বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগে কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের উপস্থিতি অবশ্য অন্য দিনের তুলনায় কিছুটা কম ছিল।

কর্মকর্তা ও কর্মচারী পরিবহন সংশ্লিষ্টরা জানান, কর্মচারীদের বহনকারী সবগুলো বাস নির্ধারিত সময়ে সচিবালয়ের ফটকে পৌঁছায়। তবে প্রতিটি বাসে নিরাপত্তার জন্য চারজন করে পুলিশ ছিল। নির্দিষ্ট সময়ের বাইরেও অনেককে অফিসে আসতে দেখা গেছে।

উপস্থিতি কম এবং সচিবালয় ফাঁকা দেখা গেলেও সংস্থাপন মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, এ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের উপস্থিতি ছিল প্রায় স্বাভাবিক।

অর্থ মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ঘুরেও স্বাভাবিক উপস্থিতি দেখা যায়। তবে সকালে অর্থমন্ত্রী সচিবালয়ে একটি সভায় মিলিত হয়েছেন।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, “হরতালের দিন আমাদের অফিসে আসার তাগিদ আরো বেশি থাকে। কারণ অনুপস্থিত থাকলে কারণ দর্শানোর নোটিশসহ (শোকজ) নানা হয়রানির সম্ভাবনা থাকে।”

– See more at: http://www.dhakatimes24.com/2014/10/30/41877/%E0%A6%B9%E0%A6%B0%E0%A6%A4%E0%A6%BE%E0%A6%B2%E0%A7%87-%E0%A6%B8%E0%A6%9A%E0%A6%BF%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%B2%E0%A7%9F%E0%A7%87-%E0%A6%85%E0%A6%AB%E0%A6%BF%E0%A6%B8-%E0%A6%95%E0%A6%B0%E0%A6%9B%E0%A7%87%E0%A6%A8-%E0%A6%AA%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%A7%E0%A6%BE%E0%A6%A8%E0%A6%AE%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%A4%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A7%80#sthash.RocixYfz.dpuf

যুদ্ধাপরাধের দায়ে দলের আমির মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসির রায়ের প্রতিবাদে জামায়াতের ডাকা হরতালে সচিবালয় এলাকায় কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হেয়েছে। তবে হরতালের প্রথম দিনে সচিবালয়ে অফিস করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অন্যদিনের মতোই স্বাভাবিক কাজকর্ম চলছে।সচিবালয়ে হরতালের তেমন কোনো প্রভাব পড়েনি  ।

রায়ের পর ভারপ্রাপ্ত আমির মকবুল আহমাদ ও ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান গতকাল বুধবার এক বিবৃতিতে এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

তিন দিন হরতালের মধ্যে প্রথম দফায় বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে শুক্রবার সকাল ৬টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টা হরতাল হবে।

এছাড়া দ্বিতীয় দফায় রবিবার সকাল ৬টা থেকে মঙ্গলবার সকাল ৬টা পর্যন্ত টানা ৪৮ ঘণ্টা হরতাল করার ঘোষণা দিয়েছে দলটি।

এদিকে সকাল সাড়ে ১০টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় পরির্দশন এবং অফিস করছেন।

বৃহস্পতিবার ভোর ৬টা থেকেই সচিবালয়ের আশপাশে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।চারপাশে দেখা যায় পুলিশের টহল।

সচিবালয়ের প্রবশেমুখে জিরো পয়েন্টের দিকে রাস্তা খোলা থাকলেও সেখানে উল্লখযোগ্য সংখ্যক নিরাপত্তাকর্মী রাখা হয়।

গত ২৯ এপ্রিল ১৮ দলীয় জোটের হরতালে কড়া পুলিশ পাহারার মধ্যেই সচিবালয়ে দুটি হাতবোমার বিস্ফোরণ ঘটে। এরপর থেকেই বিএনপি বা জামায়াতে ইসলামীর হরতাল বা অন্যান্য কর্মসূচিতে সচিবালয় একালায় কড়া নিরাপত্তা নেয়া হয়।

ভোর থেকেই সচিবালয়ের সামনের রাস্তায় কাঁটাতারের বেড়া দিয়ে যানবাহন নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে। সচিবালয়ের স্টিকারযুক্ত গাড়ি দেখে দেখে এ সড়কের একাংশ দিয়ে যানবাহন ঢুকতে ও চলতে দেয়া হয়। হাঁটাচলার ক্ষেত্রেও ছিল কড়াকড়ি।

আব্দুল গনি রোডের সচিবালয় সংলগ্ন রাস্তায় যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে।

সচিবালয় ঘুরে দেখা যায়, অন্যদিনের মতো বৃহস্পতিবার ও স্বাভাবিক গতিতে প্রশাসনিক কার্যক্রম চলেছে। বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগে কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের উপস্থিতি অবশ্য অন্য দিনের তুলনায় কিছুটা কম ছিল।

কর্মকর্তা ও কর্মচারী পরিবহন সংশ্লিষ্টরা জানান, কর্মচারীদের বহনকারী সবগুলো বাস নির্ধারিত সময়ে সচিবালয়ের ফটকে পৌঁছায়। তবে প্রতিটি বাসে নিরাপত্তার জন্য চারজন করে পুলিশ ছিল। নির্দিষ্ট সময়ের বাইরেও অনেককে অফিসে আসতে দেখা গেছে।

উপস্থিতি কম এবং সচিবালয় ফাঁকা দেখা গেলেও সংস্থাপন মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, এ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের উপস্থিতি ছিল প্রায় স্বাভাবিক।

অর্থ মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ঘুরেও স্বাভাবিক উপস্থিতি দেখা যায়। তবে সকালে অর্থমন্ত্রী সচিবালয়ে একটি সভায় মিলিত হয়েছেন।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, “হরতালের দিন আমাদের অফিসে আসার তাগিদ আরো বেশি থাকে। কারণ অনুপস্থিত থাকলে কারণ দর্শানোর নোটিশসহ (শোকজ) নানা হয়রানির সম্ভাবনা থাকে।”

– See more at: http://www.dhakatimes24.com/2014/10/30/41877/%E0%A6%B9%E0%A6%B0%E0%A6%A4%E0%A6%BE%E0%A6%B2%E0%A7%87-%E0%A6%B8%E0%A6%9A%E0%A6%BF%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%B2%E0%A7%9F%E0%A7%87-%E0%A6%85%E0%A6%AB%E0%A6%BF%E0%A6%B8-%E0%A6%95%E0%A6%B0%E0%A6%9B%E0%A7%87%E0%A6%A8-%E0%A6%AA%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%A7%E0%A6%BE%E0%A6%A8%E0%A6%AE%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%A4%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A7%80#sthash.RocixYfz.dpuf

Facebook Comments
শেয়ার করুন