পরকিয়ার জেরে শিশু পুত্রকে রাস্তায় ফেলে গেলেন পাষন্ড মা

6

ষ্টাফ রিপোর্টার: ১০ বছরের একমাত্র শিশু পুত্রকে রাস্তায় ফেলে পরকিয়া প্রেমিকের হাত ধরে দুবাই প্রবাসির নজরুলের স্ত্রী আমেনা খাতুন ঝর্না ৩০ লাখ টাকার সম্পদ হাতিয়ে নিয়ে প্রায় দু’মাস ধরে উধাও রয়েছে। চাঞ্চল্যকর এঘটনা ঘটেছে শ্রীপুর উপজেলার কাওরাইদ গ্রামে। অভিযোগে জানা যায়, ময়মনসিংহ জেলার পাগলা থানার বড়বড়াই গ্রামের দুবাই প্রবাসি নজরুল ইসলামের স্ত্রী আমেনা খাতুন ঝর্না (৩০) স্বামীর অনুপস্থিতিতে মুলাইদ গ্রামাস্থ নিজ বাড়ীতে অবস্থান করতো। বিয়ের দেড় বছর পর নজরুল চাকুরী নিয়ে কুয়েত চলে যায়। এরই মধ্যে তাদের সংসারে জন্ম নেয় শিশু পুত্র ইমন। দীর্ঘ ১০ বছর প্রবাস জীবনের কষ্টার্জিত অর্থ সরল বিশ্বাসে নজরুল তুলে দেয় স্ত্রীর হাতে। ওই টাকায় স্বামীর পরিবর্তে ঝর্না নিজ নামে মুলাইদ গ্রামে জমি কিনে বাড়ী নির্মান করে বসবাস করতো। স্বামীর অনুপসি’তির সুযোগে ঝর্না কাওরাইদ গ্রামের মৃত মাহু মিয়ার পুত্র নিজাম উদ্দিন নিশুর সাথে পরকিয়ায় জড়িয়ে পড়ে। ১২ অক্টোবর রাতে ঝর্না শিশু পুত্র ইমন (১০) কে দাদার বাড়ী যাবার কথা বলে বের হয়ে কাওরাইদ সিএনজি ষ্টেশনে রেখে পরকিয়া প্রেমিকের হাত ধরে পালিয়ে যায়। নজরুলের ভাই নুরুল ইসলাম ৬ দিন পর ইমনকে উদ্ধার করে ১৮ অক্টোবর শ্রীপুর থানায় ৭৩৫৩নং সাধারন ডাইরী করে। এ ঘটনায় ইমন তার মা ঝর্না ও পরকিয়া প্রেমিক নিজাম উদ্দিন নিশু সহ ৫ ব্যক্তির বিরুদ্ধে নগদ টাকা স্বর্নালংকার, বসত বাড়ীর জমিসহ প্রায় ৩০ লাখ টাকা সম্পদ আত্নসাতের অভিযোগ দায়ের করেন। কাওরাইদ ইউপির গ্রাম আদালত থেকে বার বার বিবাদী পক্ষকে নোটিশ দেওয়া হলেও ঝর্না ও তার লোকজন গ্রাম্য আদালতে হাজির হয়নি। ইমনের দায়ের করা অভিযোগটি সত্য প্রমানিত হওয়ায় কাওরাইদ ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম্য আদালত ইমনকে উচ্চতর আদালতে বিচার প্রার্থী হওয়ার পরামর্শ দেন। এদিকে স্ত্রী উধাও হওয়ার খবর পেয়ে দেশে ফিরে সহায় সম্বল হারা নজরুল শ্রীপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, থানা পুলিশসহ বিভিন্ন স্থানে বিচারের দাবীতে ধারে ধারে ঘুরছে।

Facebook Comments