ভারতে বারাক ওবামা

0
15
Print Friendly, PDF & Email
obama visit 51332 0

ডেস্ক রিপোর্ট: তিন দিনের সফরে আজ রবিবার দিল্লির পালম বিমানবন্দর ছুঁয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাকে বহনকারী এয়ারফোর্স ওয়ান। বিমানবন্দরে সস্ত্রীক ওবামাকে স্বাগত জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বিমানবন্দর থেকে মার্কিন প্রেসিডেন্টের কনভয় রাষ্ট্রপতি ভবনের উদ্দেশে রওনা করে। সেখানে তাঁকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানান রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়। মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসাবে এটি তাঁর দ্বিতীয় বার ভারত সফর। স্বাধীন ভারতের ইতিহাসে এই প্রথমবার প্রজাতন্ত্র দিবসে বিশেষ অতিথি হতে চলেছেন কোনও মার্কিন প্রেসিডেন্ট। আজ রবিবার দুপুরে দুই শীর্ষ নেতা ওবামা এবং মোদির মধ্যে মধ্যাহ্নভোজ এবং বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। এরপর হবে দুদেশের প্রতিনিধি স্তরের বৈঠক। রাতে ওবামার সফর উপলক্ষে রাইসিনা হিলে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে আড়াইশো অতিথিকে।

ভারত সফরে এসে উপমহাদেশের বিখ্যাত সব খাবারের স্বাদ নেবেন না বারাক ওবামা তা কি করে হয়! ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের অতিথি হয়ে রাতে রাইসিনা হিলসেই নৈশভোজ করবেন ওবামা এবং মিশেল। মাছ থাকছেই। খাঁটি বাঙালি প্রণবের আতিথেয়তায় বাঙালিয়ানার ছোঁয়া থাকছে শতভাগ। রাতের মেনুতে থাকছে মাছ, মাংস, নিরামিষ সবই; বাদ যাচ্ছে না কাশ্মীরের খাবারও।

ওমাবার পাতে তুলে দেয়া হবে মজাদার গলৌটি কাবাব এবং চিকেন মালাই টিক্কা। পনির এবং ফ্রেশ ক্রিমে ম্যারিনেট করে তৈরি এ কাবাবগুলো মুখে দিলেই গলে যাবে। সেই সঙ্গে কাশ্মীরে গুস্তাবা (মাংসের বল দিয়ে তরকারি)। ভেটকি মাছ দিয়ে সরষে রান্না, সঁওফিয়া ফিশ টিক্কার সঙ্গে থাকবে চিকেন কোরমা, মাটন রোগন জোশ, পোলাও, তন্দুরি রুটি ও নান, দহি গুজিয়া ও পাঁপড়।

এছাড়া নিরামিষের তালিকায় থাকবে স্টার ফ্রায়েড ব্রকোলি, পনির মালাই টিক্কা, ভেজিটেবল কাবাব, ডাল রাইসিনা, কড়ি পাকোড়া। ভোজন শেষে মিষ্টি মুখ করবেন না তা কি করে হয়! ওবামার পাতে তুলে দেয়া হবে সুস্বাদু মালপোয়া ও রাবড়ি। দুপক্ষের গুরুগম্ভীর আলোচনার ছাড়াও ওবামার ভারত সফরকে আনন্দদায়ক করতে কোনো কমতি রাখেননি মোদি। আমন্ত্রিত আড়াইশো অতিথির তালিকায় রয়েছেন কংগ্রেস সুপ্রিমো সোনিয়া ও রাহুল গান্ধী, কিংবদন্তী ক্রিকেটার শচীন টেন্ডুলকার, জনপ্রিয় সংগীত শিল্পী এ আর রহমান, বলিউড তারকাদের মধ্যে বিগ বি অমিতাভ বচ্চন, আমির খান এবং প্রিয়াঙ্কা চোপড়া।

আজকের নৈশভোজে ওবামার জন্যে বাজবে বাংলা, হিন্দি এবং ইংরেজি গানের সুর। বাংলা একটি এবং হিন্দি ও ইংরেজি চারটি করে মোট নয়টি গান বাজবে। বিখ্যাত বাংলা গান একলা চলো রে এবং জনপ্রিয় চারটি হিন্দি গান বাজানো হবে। এছাড়া ইংরেজি গান ‘ইয়েস উই ক্যান’ পরিবেশন করা হবে। ওবামার বক্তৃতা থেকে কথা তুলে এই গানটি লেখা ও সুর দেয়া হয়েছিল ২০০৮ সালে। মাইকেল জ্যাকসন ও লায়োনেল রিচি-র বিখ্যাত সুর ‘উই আর দ্য ওয়ার্ল্ড’, মার্কিন শিল্পী মিগুয়েলের কথা  ও সুরে ‘কুইকি’ এবং ১৯৮৫ সালে স্টিভি ওয়াল্ডারের গাওয়া ‘পার্ট টাইম লাভার’ তো থাকছেই। 

মাত্র ছয়মাস আগে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ক্ষমতা গ্রহণের পর পররাষ্ট্রনীতির প্রশ্নে একের পর এক মোক্ষম চাল দিতে দেখা গিয়েছে মোদিকে। তারই সাম্প্রতিকতম সংযোজন এই সফর।  ক্ষমতায় আসার পর থেকে বিশেষ অগ্রাধিকার দিয়ে মার্কিন সম্পর্ককে দেখেছেন মোদি। কূটনীতিকদের মতে, এই মুহূর্তে ভারত এবং যুক্তরাষ্ট্র উভয়েরই প্রয়োজন একে অপরকে। খুচরো বিদেশি বিনিয়োগ থেকে প্রতিরক্ষা সব ক্ষেত্রেই বিদেশি পুঁজিকে স্বাগত জানাচ্ছেন মোদি। বিনিয়োগ-বান্ধব এই পরিস্থিতি ওবামা তথা মার্কিন প্রশাসনের কাছে দীর্ঘদিন ধরেই কাঙ্ক্ষিত ছিল।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, ভারত মার্কিন পরমাণু চুক্তির রূপায়ণ, প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে দশ বছর আগে করা চুক্তিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া, পরিবেশ সংক্রান্ত চুক্তি রূপায়ন, আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে যৌথ কৌশল রচনা এবং শিল্প ও বাণিজ্য ক্ষেত্রে দুদেশের সমঝোতার মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো আলোচনায় সর্বোচ্চ গুরুত্ব পাবে। সর্বোপরি বাণিজ্য ক্ষেত্রে একটি বড় অগ্রগতির জন্য সর্বাত্মক প্রয়াস থাকবে দুপক্ষেই। এই মুহূর্তে দুদেশের মোট পণ্য বাণিজ্যের পরিমাণ ৬১.৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। আগামী কয়েক বছরের মধ্যে এই পরিমাণ দ্বিগুণ করা যায়, তার পথ সন্ধান করবেন দুদেশের বাণিজ্য কর্তারা।

Facebook Comments
শেয়ার করুন