কালিয়াকৈরে নির্মানাধীন মসজিদের ছাদ ধসে আহত-১০

16
KALIAKOIR-31-07-15-PICTUR

মো: হুমায়ুন কবির, কালিয়াকৈর প্রতিনিধি: কালিয়াকৈর উপজেলার আন্দার মানিক পুর্বপাড়া এলাকায় একটি কারখানার নির্মানাধীন মসজিদের ছাদ ধসে বৃহস্পতিবার রাতে কমপক্ষে ১০জন আহত হয়েছে। আহতদের উদ্ধার করে বিভিন্ন ক্লিনিক ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শী ও কারখানা সুত্রে জানা যায়, ওই এলাকার এম এস এ কারখানার মসজিদের দ্বিতীয় তলার ছাদের নির্মান কাজ চলাকালে সন্ধার দিকে ওই ভবনের উওর অংশের ছাদ ধসে নিচে পরে যায়। এসময় ছাদের নিচে নির্মান শ্রমিকরা আটকা পড়ে। আশে পাশের লোকজন দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে নিচে পড়া শ্রমিকদের উদ্ধারের কাজ শুরু করে। এ সময় বেশ কিছু শ্রমিককে উদ্ধার করে স্থানীয় সফিপুর জেনারেল হাসপাতাল ও মর্ডান হাসপাতালে প্রেরন করা হয়। পরে কালিয়াকৈর ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আটকা পড়া বাকী শ্রমিকদের উদ্ধার করলেও দুইজন শ্রমিক ছাদের নিচে আটকা পরে যায়। পরে নির্মানাধীন ছাদের রড কেটে রাত পৌনে ৯টার সময় আহত দুজনের মধ্যে অহিদুল ইসলাম নামে এক নির্মান শ্রমিককে  উদ্ধার করে। আহত অন্য শ্রমিকরা হচ্ছে- কামাল, জামাল, রাশেদুল, সলেমা, আলমগীর, জালাল, শাহাবুদ্দিন, নিমাই। কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)ওমর ফারুক সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

কালিয়াকৈর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান ও কালিয়াকৈর পৌরসভার মেয়র মজিবুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ ব্যাপারে এম এস কারখানার এডমিন অফিসার আনোয়ার হোসেন বলেন, কারখানার মসজিদের দ্বিতীয় তলার ছাদের নির্মান কাজ শেষ পর্যায়ে হঠাৎ উওর পাশের ছাদের কিছু অংশ ধসে পরে। এতে বেশ কয়েকজন শ্রমিক আহত হয়েছে। এব্যাপারে জানতে চাইলে কারখানার প্রশাসনিক কর্মকর্তা বিমল চন্দ্র রায় জানান, মসজিদটি কারখানার পাশে হলেও এটি কারখানা কর্তৃপক্ষের নয়। এলাকাবাসীর ওয়াকফকৃত জমিতে মসজিদ নির্মাণ করছেন এলাকাবাসী। কারখানা কর্তৃপক্ষ কিছু আর্থিক সহযোগিতা করছে। তবে,ঠিকাদারের নির্মান ক্রুটির কারনে ভবনটি ধসে পড়েছে। আহতদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। গাজীপুর ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক মোঃ আক্তারুজ্জামান লিটন জানান,কালিয়াকৈর থানার ওসির মাধ্যম্যে খবর পেয়ে দ্রুত গঠনাস্থলে পৌছে রাত পৌনে ৯টার দিকে উদ্ধার কাজ শেষ করা হয়। আহতদের উদ্ধার করে বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সর্বশেষ অহিদুল ইসলামকে উদ্ধার করে সাভার এনাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক তবে জীবিত আছে।

Facebook Comments