বিয়ের আসরে মাথা কামালেন কনে, কেন?

50
1112

ডেস্ক রিপোর্ট:প্রকৃত প্রেম বলে কি সত্যিই কিছু হয়? বইয়ের পাতা আর সিনেমার পর্দা ছাড়া প্রকৃত প্রেমের অস্তিত্ব কি আছে? এক কথায় বললে- আছে। ক্রেগ ও জন লিয়নসের কথা জানলে আপনিও বুঝবেন যে স্বার্থহীন খাঁটি ভালোবাসা আজও আমাদের মধ্যেই লুকিয়ে আছে। তবে সবাই সে ভালবাসা খুঁজে পায় না। অনেকে খোঁজার চেষ্টাই করে না।

ক্রেগ ও জনের চেনাশোনা গত ৩০ বছরের। ক্রেগের বয়স তখন ১৪ আর জনের ১২। তাঁর লেডি লাভ-কে মাত্র ১৮ মাস আগে বিয়ের প্রস্তাব দেন ক্রেগ। চলতি বছরের শেষের দিকে বিয়ের দিন পাকা হয়ে যায় তাঁদের। কিন্তু এর মধ্যেই আসে দুঃসংবাদ। প্যানক্রিয়াটিক ক্যানসারের প্রায় শেষ স্টেজে রয়েছেন ক্রেগ।

দুঃখ চেপে ৩০ বছরের সম্পর্ককে পরিণতি দিতে বিয়ে এগিয়ে আনার সিদ্ধান্ত নেন তাঁরা। কেমোথেরাপিতে মাথার চুল প্রায় উঠে গেছে ক্রেগের। জীবনসঙ্গীকে শ্রদ্ধা জানিয়ে বিয়ের আসরেই নিজের মাথার চুল কামিয়ে ফেলার সিদ্ধান্ত নেন জন।
{facebookpopup}
যেমন ভাবা, তেমনি কাজ। বিয়ের আসরে, বহু লোকের সামনেই নিজের মাথা কামিয়ে ফেলেন কনে জন। এই নতুন চেহারায় তাঁকে আরও সুন্দর, আরও আকর্ষণীয় লাগছে বলে জানিয়েছেন ক্রেগ। ক্যানসার ট্রিটমেন্টের ফলে এই মারণ রোগে আক্রান্ত যে সব শিশুদের মাথার চুল উঠে যায়, তাদের জন্য উইগ প্রস্তুতকারী স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা লিটল প্রিন্সেস ট্রাস্টে নিজের চুল দান করেছেন জন।

Facebook Comments