রাজধানীতে ভাড়ায় চলবে বাইক!

17
bayk on road dhaka

এবার রাজধানীতে ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেল নামানো হচ্ছে। আগামী মাসের প্রথম তারিখ থেকে এই সুবিধা চালু করতে যাচ্ছে ডাটাভক্সসেল লিমিটেড নামের একটি প্রতিষ্ঠান। এই সেবার আওতায় তীব্র যানজটেও যাত্রীকে স্বল্প সময়ে গন্তব্যে পৌছে দেওয়া হবে বলে দাবী করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

রাজধানীতে নতুন এই যোগাযোগ সেবা প্রসঙ্গে ডাটাভক্সের এমডি ইমতিয়াজ কাসেম বলেন, বর্তমানে রাজধানীতে চার লাখেরও বেশি ব্যক্তিগত মোটরসাইকেল চলাচল করছে। এই পরিমাণ মোটরসাইকেল যদি যাত্রীপরিবহনের জন্য ব্যবহৃত হতো তাহলে প্রতিদিন ৪ লাখের বেশি যাত্রী পরিবহন করা সম্ভব। ওই মোটর সাইকেলগুলোকে গণপরিবহনের ব্যবসায় নামানোর চিন্তা থেকেই এগিয়ে আসা। পুরো বিষয়টিকেই আমরা ই-কমার্স ভিত্তিক করতে যাচ্ছি। এই ই-কমার্স সার্ভিসের নাম হচ্ছে ‘স্যাম’ বা ‘শেয়ার’। 

এই স্যাম নামের অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে যাত্রীরা বাইকারের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবেন। এই অ্যাপটি ব্যবহার করেই যাত্রীরা তাদের টাকাও পরিশোধ করতে পারবেন। সম্পূর্ন প্রক্রিয়াটি নিরাপদ বলেও জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটি।

এই সেবা গ্রহণ করতে একজন যাত্রীকে মিনিমাম ৩০ টাকা দিতে হবে। আর কিলোমিটার প্রতি ভাড়া হবে ৬ টাকা। যাত্রা পথে কোনো যাত্রী বাইকারকে অপেক্ষমাণ রাখলে মিনিট প্রতি দুই টাকা পরিশোধ করতে হবে।

পুরো লেনদেনটিই হবে ই-পেমেন্টের মাধ্যমে। মোট বিলের ২০ শতাংশ দিতে হবে সংস্থাকে। স্যাম অপ্লিকেশনে মোটরসাইকেল চালকদের নিবন্ধন করতে হলে চালকদের বিআরটিএ’র বৈধ কাগজপত্রযুক্ত এবং ট্রাফিক আইন ও নিয়ম মেনে চলতে হবে। তবে স্যাম এর রেজিস্ট্রেশন করতে কোন ফির প্রয়োজন হবে না।

সেবা গ্রহণের জন্য যাত্রীকে প্রথমে অ্যানড্রয়েড ডিভাইসে স্যাম রাইডার অ্যাপসটি ইনস্টল করে নিতে হবে। একই কাজ করতে হবে মোটরসাইকেল মালিকদেরও। এরপর লগ ইন করলে যাত্রী তার যাত্রার জন্য একটি অনুরোধ পাঠাবে। ওই অনুরোধটি তার দুই কিলোমিটারের মধ্যে অবস্থিত সব বাইকারের কাছে পৌঁছে যাবে। তারাই গ্রাহকের সঙ্গে যোগাযোগ করবে।

স্যাম নামের এই অ্যাপসটি তৈরি করেছে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত কিছু বাংলাদেশি ও ভারতীয় প্রকৌশলী। আর এ বিষয়ে কৌশলগত সহযোগী হিসেবে থাকছে ওমেরা, রহিম আফরোজ, বিকাশ, গ্যাটকো এবং অলওয়েজ অনলাইন নেটওর্য়াক নামের প্রতিষ্ঠানগুলো।

Facebook Comments