শ্রীপুরে প্রশ্নপত্র কেন্দ্রের বাহিরে সরবরাহের অভিযোগে সহকারী কেন্দ্র সচিবকে আটক

0
46
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার ঃ
গাজীপুরের শ্রীপুরে এস.এস.সি পরীক্ষা কেন্দ্রের বাইরে কেন্দ্র সহকারী সচিবের কাছে প্রশ্নপত্র পাওয়ায় তাকে আটক করেছে শ্রীপুর থানা পুলিশ।

১০ ফেব্রুয়ারী শনিবার সকাল সাড়ে দশটায় উপজেলার মাওনা কেন্দ্রের পিয়ার আলী কলেজ ভেন্যুতে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত শিক্ষককে তাৎক্ষণিক কেন্দ্রের সকল দায়িত্ব থেকে অব্যহতি দেওয়া হয়েছে।

আটক হওয়া প্রধান শিক্ষক আমজাদ হোসেন (৪৫) শ্রীপুর পৌর এলাকার বেরাইদের চালা গ্রামের সুলতান উদ্দিনের ছেলে। সে স্থানীয় আলহাজ ধনাইবেপারী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও মাওনা কেন্দ্রের সহকারী সচিব । শনিবার সকাল সাড়ে দশটার দিকে শ্রীপুর-১৪৮ মাওনা কেন্দ্রের পিয়ার আলী কলেজ থেকে তাকে আটক করা হয়।

কেন্দ্রের দেয়া তথ্য, দায়িত্বরত পুলিশ ও মাওনা কেন্দ্রের সচিব শাহজাহান সিরাজের সাথে কথা বলে জানা যায়, সকাল ১০টা থেকে গণিত পরীক্ষা চলছিল। সাড়ে দশটার কিছু আগে ওই কেন্দ্রের সহকারী সচিব ও উপজেলার আলহাজ্ব ধনাই বেপারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আমজাদ হোসেন নাহিন শিক্ষার্থীদের দেওয়ার জন্য সংরক্ষিত লিখিত প্রশ্নপত্রের বান্ডেল থেকে একটি প্রশ্ন সরিয়ে নিজের পকেটে রাখেন।

এ সময় কেন্দ্রে আইন শৃঙ্খলার রক্ষার দায়িত্বে থাকা শ্রীপুর পুলিশের শিক্ষানবিশ উপপরিদর্শক নয়ন ভূইয়া ঘটনাটি স্বচক্ষে দেখে ফেলেন। কিছুক্ষণের মধ্যেই ওই কেন্দ্র সহকারী সচিব প্রশ্নপত্রসহ কেন্দ্র থেকে বের হওয়ার জন্য পিয়ার আলী কলেজ ভেন্যুর মূল ফটকের বাইরে যেতে চাইলে পুলিশের ওই কর্মকর্তাও তাকে অনুসরণ করতে থাকেন। ফটকের বাইরে গিয়ে প্রশ্নপত্রটি অন্য কাউকে হস্থান্তর করার চেষ্টা করছিলেন তিনি।

এ সময় শিক্ষককে প্রশ্নসহ হাতেনাতে ধরে ফেলেন পুলিশ কর্মকর্তা। তাৎক্ষণিক শিক্ষক তার কাছে প্রশ্নপত্র থাকার বিষয়টি অস্বীকার করলে তাকে নিয়ে নির্দিষ্ট কক্ষে গিয়ে ওই কক্ষে সংরক্ষিত প্রশ্নপত্রগুলো গণনা করে একটি প্রশ্নপত্র কম পাওয়া যায়। পরে পুলিশ ওই শিক্ষকের পকেট থেকে প্রশ্নটি উদ্ধার করেন। বিষয়টি কেন্দ্র সচিব ও মাওনা বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহজাহান সিরাজকে জানান। কিছুক্ষণের মধ্যেই শিক্ষা কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে এসে অভিযুক্ত ওই শিক্ষককে দায়িত্ব থেকে অব্যহতি দেন। পরে শ্রীপুর থানা পুলিশ তাকে আটক করে নিয়ে যায়।

শ্রীপুর থানার শিক্ষনবিশ উপপরিদর্শক(পিএসআই) নয়ন ভূইয়া জানান, ওই শিক্ষককে প্রশ্ন পকেটে রাখার ঘটনাটি দেখে তাকে হাতেনাতে ধরার জন্য অপেক্ষা করছিলাম। কিছুক্ষনের মধ্যেই সে প্রশ্নপত্র নিয়ে কেন্দ্রের বাইয়ে যাচ্ছে দেখে আমি তার পিছু নেই। ফটকের বাইরে গিয়ে তিনি প্রশ্নটি অজ্ঞাত কাউকে দেওয়ার প্রস্তুতি নেয়ার সয়য় আমি তাকে ধরে ফেলি।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো: সাইফুল ইসলাম জানান, পরীক্ষা চলাকালীন সময় কেন্দ্র সহকারী সচিবের কাছে কেন্দ্রের বাইরে প্রশ্নপত্র পাওয়া গেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। পুলিশ তাকে আটক করে থানায় নিয়ে গেছে। তদন্তের স্বার্থে পরীক্ষার সংশিষ্ট সকল দায়িত্ব থেকে ওই অভিযুক্ত শিক্ষককে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

Facebook Comments
শেয়ার করুন