বর্ষ ১ - সংখ্যা ৪৯

সংবাদ শিরোনাম :
নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকার প্রতিষ্ঠায় ঐক্যবদ্ধ হতে হবেঃ অধ্যাপক ডা. এসএম রফিকুল ইসলাম বাচ্চু: শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করন সময়ের দাবী: সিলেটে ত্রান না পাওয়ার অভিযোগ করায় অভিযোগকারিকে আওয়ামীলীগ নেতার মারধর: ইউএনও’র বিরুদ্ধে মামলা প্রভাবশালীদের ইন্ধনে!: আন্তর্জাতিক পাবলিক সার্ভিস দিবস আজ: গাজীপুর আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা: কালীগঞ্জে অসহায় গ্রামবাসীকে বিনামূল্যে চিকিৎসা ও ওষুধ প্রদান: বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক ঘুরে দেখলেন সজিব ওয়াজেদ জয়: বিএনপির সদস্য হতে নারী ও তরুণদের ব্যাপক আগ্রহ: ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ নিয়ে সমালোচনায় ট্রাম্প: ইরানের পরমাণু সমঝোতা বাস্তবায়ন করুন : চীন: মার্চেই প্রাথমিকে ১৭ হাজার শিক্ষক নিয়োগ : গাজীপুরে অস্ত্র ও গুলিসহ ৬ ডাকাত আটক: গাজীপুর আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে আ.লীগ প্যানেল জয়ী: গাজীপুরের শ্রীপুরে সড়কে গর্ত ও ধুলায় জনদুর্ভোগ চরমে:
A+ A A-

সিলেটে ত্রান না পাওয়ার অভিযোগ করায় অভিযোগকারিকে আওয়ামীলীগ নেতার মারধর

syl pic 22 07 17 1 52929 1500753078সিলেটে বন্যাদুর্গত এলাকার এক বাসিন্দা ত্রাণ পাননি এমন অভিযোগ করার পর ক্ষমতাসীন দলের নেতার হাতে লাঞ্ছিত হয়েছেন। মারধর করার পর তার কান টেনে ধরেন ওই আওয়ামী লীগ নেতা।

এ নিয়ে ক্ষোভ বিরাজ করছে স্থানীয়দের মধ্যে। ন্যক্কারজনক এ ঘটনা ঘটেছে দক্ষিণ সুরমা উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়নে। ত্রাণ নিয়ে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সুধী সমাবেশের আয়োজন করেন।

এ সমাবেশে তাকে প্রকাশ্যে কান ধরে টানাহেঁচড়া, মারধর করা হয়। জানা গেছে, বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় দাউদপুর ইউনিয়ন পরিষদে ইনাতআলীপুর গ্রামের সোনা মিয়ার ছেলে লুৎফুর রহমান লকুসকে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল বাছিত বকুল মারধর করেছেন।

শুধু মারধর করেই ক্ষান্ত হননি। তাকে তাড়িয়ে দিয়েছেন ইউনিয়ন পরিষদ থেকে। এ সময় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা ইউপি চেয়ারম্যানসহ গণমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

অভিযুক্ত আওয়ামী লীগ নেতা বাবুল মিয়া জানান, ত্রাণ পাননি এমন অভিযোগ করার পর জনরোষের শিকার হন লকুস। ক্ষুব্ধ জনতার হাত থেকে তাকে বাঁচাতে ধাক্কা দিয়ে একটি কক্ষে নিয়ে রক্ষা করেছি।

স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার হিরা মিয়া জানান, এর আগে ভিজিএফ দেয়া হয়েছে। কিন্তু সে ত্রাণ পায়নি এমন অভিযোগ করার পর স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা ক্ষেপে যান।

সে বিত্তশালী, ত্রাণ পাওয়ার উপযুক্ত নয়। এর বেশি তিনি কিছু বলতে চাননি। ইউপি চেয়ারম্যান এইচএম খলিল ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, সুধী সমাবেশে অনেকেই অনেক অভিযোগ করেছেন।

লকুস মিয়া ত্রাণ পাননি অভিযোগ করার পর স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা বাবুল মিয়া জনগণের রোষানল থেকে বাঁচাতে তাকে ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে নেন। এর বাইরে কিছু ঘটে থাকলে তার জানা নেই।-যুগান্তর