বর্ষ ১ - সংখ্যা ৪৯

সংবাদ শিরোনাম :
মার্চেই প্রাথমিকে ১৭ হাজার শিক্ষক নিয়োগ ::. গাজীপুরে অস্ত্র ও গুলিসহ ৬ ডাকাত আটক ::. গাজীপুর আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে আ.লীগ প্যানেল জয়ী ::. গাজীপুরের শ্রীপুরে সড়কে গর্ত ও ধুলায় জনদুর্ভোগ চরমে ::. গাজীপুরের ‘জাগ্রত চৌরঙ্গী’ এখন মূত্রত্যাগীদের পাবলিক টয়লেট !! ::. কালিয়াকৈরে কবরস্থানের জমিতে মার্কেট নির্মাণের অভিযোগ ! ::. উপমহাদেশের অন্যতম শ্রেষ্ঠ বিজ্ঞানী ড. মেঘনাদ সাহার স্মরণ সভা পালিত ::. শ্রী শ্রী মহানাম যজ্ঞানুষ্ঠান ও অষ্টকালীন লীলা কীর্তন অনুষ্ঠিত ::. মালয়েশিয়ায় জনশক্তি রপ্তানির দ্বার উন্মোচন ::. পুলিশি হামলা : দুঃশাসনের বহিঃপ্রকাশ : বিএনপি ::. বুড়িগঙ্গার সীমানা নির্ধারণ ও দখলদার উচ্ছেদের দাবি ::. রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফেরার অধিকার রয়েছে ::. সার্বভৌম সম্পদ তহবিল গঠন করতে যাচ্ছে সরকার ::. শ্রীপুরে খোলা জায়গায় পোল্ট্রি ফার্মের বর্জ্যে : দূষিত হচ্ছে পরিবেশ ::. কালিয়াকৈরে দুটি ঝুটের গুডাউনে অগ্নিকান্ড ::.
A+ A A-

এপ্রিল 2016

30 এপ্রিল 2016

ছাগলের পেটে মানুষের বাচ্চা!

BNapHsc originalছাগলের বাচ্চা তো ছাগলই হয়। কিন্তু ভিন্ন ঘটনা দেখা গেল মালয়েশিয়ার জোহর রাজ্যে। সম্প্রতি ওই অঞ্চলে এক ছাগলের পেট থেকে যে বাচ্চাটি জন্ম হয়েছে, তা দেখতে অনেকটা মানবশিশুর মত। যদিও এটি আর জীবিত নেই। মানুষ সদৃশ্য ওই ছাগলছানাটিকে দেশের পশু দপ্তরকে দান করেছেন এর মালিক ইব্রাহিম বশির।

৬৩ বছরের ইব্রাহিম জোহর রাজ্যের কোটা তিঙ্গি জেলার ফেলদা এলাকার বাসিন্দা। গত শুক্রবার স্থানীয় সময় বেলা ১১টার দিকে তার পালিত মাদী ছাগলটির ঘরে ওই বাচ্চাটির জন্ম হয়। কিন্তু নবজাতককে দেখে তিনি তো অবাক!

এ সম্পর্কে স্থানীয় এক পত্রিকাকে ইব্রাহিম বলেছেন, ‘প্রথমে অদ্ভূত ওই ছাগলের বাচ্চাটিকে দেখে আমি থ হয়ে যাই। এর মুখ, নাক, ছোট ছোট চারটি পা এমনকি দেহের গঠনটি পর্যন্ত একটি মানব শিশুর মত। যদিও ওর গোটা শরীর হালকা বাদামী লোমে ঢাকা ছিল।’

এছাড়া এটির দেহের সঙ্গে কোনো নাড়িও সংযুক্ত ছিল না। তিনি গোয়ালঘরে যাওয়ার আগেই বাচ্চাটি মারা গিয়েছিল। তবে বাচ্চটি কি জন্মের আগেই মারা গেছে, না মৃত অবস্থায় এর জন্ম হয়েছে, সে বিষয়টিও স্পষ্ট নয়। তিনি মৃত ছাগলছানাটিকে বরফ দিয়ে একটি তাপ নিরোধক বাক্সে রেখে দেন।

অদ্ভূত ওই ছাগলের বাচ্চাটি দেখতে তার বাড়িতে প্রচুর লোকজন এসে ভিড় জমিয়েছিল। কেউ কেউ বিপুল অর্থের বিনিময়ে মৃত ছাগলছানাটি কিনেও নিতে চেয়েছিল। কিন্তু ইব্রাহিম তাদের প্রস্তাবে রাজি হননি। তিনি রোববার স্থানীয় পশুবিভাগে এটি দান করেছেন।

Read more

প্লাটফর্মে ‘হঠাৎ দ্যাখা’ তিশা-নিশোর

5 10

ডেস্ক রিপোর্ট: ঢাকা ক্যান্টনমেন্টের রেলওয়ে স্টেশনের প্লাটফর্মে কিরণের সাথে হঠাৎ এভাবে দেখা হয়ে যাবে কখনও ভাবেনি অমিত। তাও প্রায় বারো বছর পর। চেনা চঞ্চল মুখে আজ অচেনার গাম্ভীর্য। দূরত্বের অন্ধকার বলয়ে নিজেকে ঘিরে রেখেছে। এক সময় অমিত নিজেই এসে কথা বলে। জানতে চায় কেমন চলছে সংসার? এসব প্রশ্নের উত্তর দিতে কিরণের কিছুতেই ভাল লাগছে না। অমিতের মনে পড়ে স্মৃতি হয়ে যাওয়া সূবর্ণ কিছু সময়। কিরণের সঙ্গে অমিতের প্রথম আলাপটা বেশ অপ্রত্যাশিত। কি একটা কাজে অমিতের বাবা সেদিন ব্যস্ত। কিরণের মা এসে অনুরোধ করে কিরণকে গানের ক্লাসে নিয়ে যেতে। হলদে কামিজের ওপর লাল ওড়না জড়িয়েছিল সেদিন। চপল আঙুলগুলো দিয়ে ধরেছিল গানের খাতাটা। পাশাপাশি রিকসায় বসেছিল দুজন। বেশ অনেকটা সময় পরে কিরণ জানতে চায়, ‘আপনার কি দাঁতে ব্যাথা?’

A2aZ51n

 অমিত অবাক হয় প্রশ্ন শুনে। কিরণ হাসে। ‘না হয় মুখে কথা নেই কেন?’ এভাবেই কথার শুরু। এরপর গানের ক্লাস, কলেজের পাশের জারুলতলা, বাসার ছাদ, নদীর ধারে মিঠে হাওয়ায় বসে নিজেদের অফুরন্ত আলাপন। ভোরবেলা শিউলি ফুল কুড়াতে গিয়ে অভিমান, অচেনা অধিকারে শাষণ বারণ। এমনই দৃশ্য দেখা যাবে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘হঠাৎ দেখা’ কবিতার অনুপ্রেরণায় নির্মিত ‘হঠাৎ দ্যাখা’ নাটকে। এতে কিরণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিশা আর অমিত চরিত্রে আফরান নিশো। এর চিত্রনাট্য করেছেন মাসুম শাহরিয়ার। পরিচালনায় আছেন আবু হায়াত মাহমুদ।

WQAGwEc

শুটিংয়ের ফাঁকে আফরান নিশো প্রিয়.কম-কে জানান, ‘আজ থেকে রাজধানী ঢাকার ক্যান্টনমেন্টের রেলওয়ে স্টেশনে নাটকটির শুটিং শুরু হয়েছে। নাটকটি কবিতার উপর ভিত্তি করে পুরো গল্পটাই চিত্রনাট্য করা হয়েছে। এ নাটকের প্রথম সিকোয়েন্স আর শেষ সিকোয়েন্স একই। এতে আমার সহ-শিল্পী তিশা। কিন্তু এ নাটকে কবিতা থেকে চিত্রনাট্য করায় উপস্থাপনে বেশ কিছুটা ভিন্নতা পাওয়া যাবে। গল্পটা একটু ভেঙে দেওয়া হয়েছে। চিত্রনাট্যকার ও পরিচালক মিলেই কাজটি করেছেন। আসছে ২৫ শে বৈশাখ নাটকটি এনটিভিতে প্রচারিত হবে।’

Read more

নতুন চাকরি খুঁজছেন? এই ৬টি বিষয় মনে আছে তো?

new job aheadডেস্ক রিপোর্ট: পড়ালেখা শেষ করে একটি ভাল চাকরি পাবার চেষ্টা থাকে প্রতিটি মানুষের। কাঙ্ক্ষিত চাকরি পাবার জন্য চলে কত চেষ্টা। প্রতিদিনই চাকরির জন্য বিভিন্ন কোম্পানিতে সিভি দিচ্ছেন। কিন্তু আপনি জানেন কি ছোট ছোট কিছু ভুল আপনার চাকরি খোঁজার কাজটি কঠিন করে দিচ্ছে? ভাল ফলাফল থাকার সত্ত্বেও এই ভুলগুলোর জন্য আপনি আপনার পছন্দের চাকরটি হারাচ্ছেন। প্রথম চাকরি খোঁজার ক্ষেত্রে কোন বিষয়গুলো অব্যশই বিবেচনা করবেন তা জেনে নিন আজকের ফিচারটি থেকে। ১। লক্ষ্য নির্ধারণ করা চাকরি খোঁজার ক্ষেত্রে একজন ফ্রেশারকে প্রথম লক্ষ্য নির্ধারণ করে নেওয়া উচিত এমনটি মনে করেন Michael Provitera, associate professor of organizational behavior at Barry University. আপনি কোন ক্ষেত্রে চাকরি করতে চান, কোন স্থানে চাকরি পেলে আপনার সুবিধা হবে সেটি প্রথমে নির্ধারন করুন। নিজের পড়ালেখা সম্পৃক্ত কোম্পানিগুলো এবং পছন্দের প্রতিষ্ঠানগুলোর সম্পর্কে রিসার্চ করে নিজেকে সে অনুযায়ী প্রস্তুত করুন। ২। চাকরিক্ষেত্র সীমাহীন রাখুন নিজের লক্ষ্য ঠিক রাখুন। তবে চাকরি ক্ষেত্রটির কোন সীমা রাখবেন না। ভবিষ্যৎ সবসময় অনিশ্চিত। আপনি জানেন না ভবিষ্যত কি হবে। হয়তো আপনার অপছন্দের চাকরটি করতে হতে পারে। সেভাবে নিজেকে প্রস্তুত রাখুন। ৩। ভাল মানের সিভি তৈরি চাকরিদাতা আপনাকে দেখার আগে আপনার সিভি দেখে থাকেন। তাই কোন অবস্থাতে সিভিকে অবহেলা করবেন না। মনোযোগ দিয়ে সিভি তৈরি করুন। চেষ্টা করুন প্রফেশনাল সিভি তৈরি করতে। আর এই কাজটি করতে আপনাকে সাহায্য করবে ইন্টারনেট। ৪। প্রযুক্তিগত দক্ষতা অর্জন প্রযুক্তি নির্ভর এই যুগে পড়ালেখার পাশাপাশি প্রযুক্তি সম্পর্কে জ্ঞান চাকরি পাওয়ার সম্ভাবনা অনেকখানি বাড়িয়ে দেয়। প্রযুক্তি সম্পর্কে বিভিন্ন কোর্স করতে পারেন। অনলাইনে নানা রকম কোর্স করানো হয়ে থাকে। এর অনেকগুলো কোর্সই ফ্রি। আপনি এর যেকোন একটি কোর্স করে নিতে পারেন। ৫। প্রতিষ্ঠান বিষয়ক জ্ঞান কোন প্রতিষ্ঠান থেকে ইন্টার্ভিউয়ের জন্য ডাক পেলে প্রথম কোন কাজটি করবেন? প্রথমে সেই প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে জেনে নিন। প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব ওয়েব সাইট থাকে। সেই সাইট থেকে প্রতিষ্ঠান এবং তার কাজের ধরণ সম্পর্কে জেনে নিন। ৬। ইন্টার্ভিউয়ের দক্ষতা বৃদ্ধি করুন নিয়মিত খবরের কাগজ পড়ার অভ্যাস করুন। বিশ্ব সম্পর্কে আপডেট থাকুন। এই কাজগুলো ইন্টার্ভিউয়ের দক্ষতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করবে। ইন্টার্ভিউয় দেওয়ার সময় নার্ভাস হবেন না। আত্নবিশ্বাসের সাথে ইন্টার্ভিউয় ফেইস করুন। নার্ভাসের ভাব কাটানোর জন্য বাসায় আয়নার সামনে অথবা পরিবারের সামনে ইন্টার্ভিউয় দেওয়া প্যাকটিস করে নিন। এতে আপনার জড়তা কেটে যাবে। আত্নবিশ্বাসের সাথে ইন্টার্ভিউয় দিতে পারবেন। মনে রাখবেন প্রথম সাক্ষাৎ একটি চাকরি পাওয়ার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। তাই চেষ্টা করবেন ইন্টার্ভিউয়তে নিজেকে সুন্দরভাবে উপস্থাপন করতে।

লিখেছেন: নিগার আলম

Read more

খিলগাঁওয়ে মৃতদেহবাহী অ্যাম্বুলেন্সে ডাকাতি

092941Dakat 2ডেস্ক রিপোর্ট: রাজধানীর খিলগাঁও থানাধীন শেখের জায়গা নামে স্থানে একটি মৃতদেহবাহী অ্যাম্বুলেন্সে ডাকাতি করে নগদ ২৬ হাজার টাকা ও এক থেকে সোয়া লাখ টাকার স্বর্ণালংকার লুট করেছে ডাকাতদল। এ সময় ডাকাতদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে সুকুমার সরকার (৫৬) নামে একব্যক্তি গুরুতর আহত হয়েছেন।শুক্রবার রাত দেড়টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ঢামেক হাসপাতালের ক্যাম্প পুলিশের নায়েক রফিকুল ইসলাম জানান, ঘটনাটা শুনেছি। আহত ব্যক্তিকে ঢামেক হাসপাতালে আনা হলে চিকিৎসকরা তাকে পঙ্গু হাসপাতালে পাঠান। সুকুমার সরকারের বড় ভাই পরিতোষ সরকার বলেন, গতকাল বার্ধক্যজনিত কারণে আমাদের মা তুলসি রানী মল্লিক মারা যান। চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি থেকে একটি অ্যাম্বুলেন্সে করে তার মৃতদেহ নিয়ে যাচ্ছিলাম টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে গ্রামের বাড়িতে। আমাদের সঙ্গে পরিবারের সদস্যদের বহনকারী আরেকটি মাইক্রোবাসে ছিলো। পথে রাত আনুমানিক দেড়টার দিকে শেখের জায়গা নামে স্থানে পথ আটকে থামিয়ে রাখা একটি মাটির ট্রাকের কারণে আমাদের গাড়ি দুটি থামালে ১০-১২ জনের ডাকাতদল হামলা চালায়। এ সময় তারা নগদ ২৬ হাজার টাকা ও এক থেকে সোয়া লাখ টাকার স্বর্ণালংকার লুট করে। তিনি আরও জানান, ডাকাতদের হামলা তার ভাই সুকুমার সরকার গুরুতর আহত হন। প্রথমে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে আনা হলে চিকিৎসকরা জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতালে (পঙ্গু হাসপাতাল) পাঠায়।

Read more

ভারতকে বাড়তি সুবিধা দিচ্ছে আইসিসি, দাবি ভিভ রিচার্ডসের

Viv Richards01ডেস্ক রিপোর্ট: বিশ্বকাপ শুরুর আগে ক্যারিবীয় দলের আসর থেকেই নাম প্রত্যাহারের এমনা শঙ্কা জেগেছিল! ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ডের (ডব্লিউআইসিবি) সঙ্গে খেলোয়াড়দের চুক্তি ইস্যুতে বিরোধের জের ধরেই এ ধরনের পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছিল। যা নিয়ে তো গোটা ক্রিকেট বিশ্বেই হইচই পড়ে যায়। শেষ পর্যন্ত টুর্নামেন্টে অংশ নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো চ্যাম্পিয়ন তকমা গায়ে লাগায় ক্যারিবীয়রা। ফাইনাল শেষে আবেগপ্রবণ অধিনায়ক ড্যারেন স্যামি তো নিজ দেশের বোর্ডের ওপরই ক্ষোভ ঝাড়েন। শুধু তাই নয়, এর ক’দিন পরই স্যামির কথার প্রতিধ্বনি আসে সতীর্থ ডোয়াইন ব্রাভোর কণ্ঠেও। এই ঘটনার জের ধরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের খেলোয়াড়দের তিরস্কার করে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসি। কিন্তু আইসিসির এই নিন্দা করায় আইসিসি'র বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিলেন ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তি ভিভ রিচার্ডস। তার দাবি, ভারতকে বাড়তি সুবিধা দিয়ে আসছে আইসিসি। বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ামক সংস্থাটি ভারতের জন্য একরকম নিয়ম আর ওয়েস্ট ইন্ডিজের জন্য অন্য নিয়ম পালন করছে। ক্যারিবিয়ানদের তিরস্কার করে আইসিসির দেয়া বিবৃতিতে বলা হয়েছিল, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ চলাকালীন তাদের আচরণ যথাযথ ছিল না। স্যামি-গেইল-ব্রাভোরা এই প্রতিযোগিতার নিয়ম-শৃঙ্খলার প্রতি শ্রদ্ধাশীল ছিলেন না বলে মন্তব্য করে আইসিসি। আইসিসির এই মন্তব্যের পরেই ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন ভিভ। তিনি রেফারেল সিস্টেম নিয়ে ভারতের আপত্তির কথা উল্লেখ করে বলেন, 'আইসিসি যদি ক্রিকেটের নিয়ামক সংস্থা হয়, তাহলে সব দেশকেই নিয়ম মানতে হবে। কিন্তু ভারত বছরের পর বছর ধরে কিছু নিয়ম মানছে না।'

Read more

ডেথ ওভারের 'রাজা' মুস্তাফিজ

Mustafizur Rahman ডেস্ক রিপোর্ট: কি স্লোয়ার! কি কাটার! কি ইয়র্কার! সব ক্ষেত্রেই যেন দিনে দিনে ছাড়িয়ে যাচ্ছেন সকলকে। অভিষেকের এক বছর হয়ে গেলেও বল হাতে এখনো সেই ‘অচেনা’ মুস্তাফিজুর রহমান। তাকে নিয়ে রীতিমতো গবেষণা করেও উদঘাটন হচ্ছে না তার বোলিংয়ের রহস্য। শুরু থেকেই বিস্ময় ছড়িয়ে আসা বাংলাদেশের বাঁহাতি এই পেসার এখনো বিস্ময়ের মোড়কে ঢাকা। বিশ্বের বাঘা বাঘা সব ব্যাটসম্যানদের কাছে যমদূত হয়ে উঠেছেন মুস্তাফিজ। তার বলে রান নিতে গিয়ে হিমশিম খেতে হচ্ছে ব্যাটসম্যানদের। বিশেষ করে শেষের ওভারগুলোতে আরো ভয়ঙ্কর রূপে আবির্ভুত হন মুস্তাফিজ। ইনিংসের শেষের দিকে ব্যাটসম্যানদের রান নেয়ার প্রবণতা বেড়ে যায়। অন্য সব বোলাররা যেখানে বাউন্ডারির পর বাউন্ডারি খেতে থাকেন ডেথ ওভারগুলোতে, সেখানে মুস্তাফিজ অন্য সবার থেকে অনেকটাই আলাদা। গেল বছরের এপ্রিলে মুস্তাফিজের অভিষেকের পর এখন পর্যন্ত ৩২ জন বোলার কমপক্ষে ২৫ বা তার বেশি ওভার বোলিং করেছে শেষ ওভারগুলোতে। শেষ পাঁচ ওভারে মুস্তাফিজের ইকোনমি মাত্র ৬.৮২। যা অন্য সবার থেকে কম। মুস্তাফিজের পরেই রয়েছেন ইংল্যান্ডের মিশেল ক্লাইডন। যার ইকোনমি ৭.৫৬। এছাড়াও টি-টোয়েন্টির সেরা বোলার ধরা হয় লাসিথ মালিঙ্গাকে। সেই মালিঙ্গারও শেষ পাঁচ ওভারে ইকোনমি ৭.৮৮। যেখানে মালিঙ্গার গড়ে ৬.৭৮ বলে একটি করে বাউন্ডারি মারে ব্যাটসম্যান সেখানে মুস্তাফিজকে গড়ে ৯.২৮ গড়ে একটি বাউন্ডারির মার পারেন ব্যাটসম্যান। মুস্তাফিজের সাথে অনেকাংশেই তুলনা দেয়া হয় ভারতীয় পেসার জাসপ্রিত বুমরাহর। সেই বুমরাহর ডেথ ওভারে গড়ে ৬.০৯ বলে একটি করে বাউন্ডারি মেরেছে ব্যাটসম্যানরা।

Read more

29 এপ্রিল 2016

ফ্রান্স ছাত্রলীগ এর পক্ষে প্যারিসে কর্মী সভা

13089940 994233697312241 1188017182 nবাংলাদেশ ছাত্রলীগ ফ্রান্স এর পক্ষে প্যারিসে অস্হায়ী কার্যালয়ে এক কর্মী সভা অনুষ্ঠিত হয়।সংগঠনের সভাপতি এম আশরাফুর রহমান অাশরাফের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম রনি'র পরিচালনায় উপস্থিত ফ্রান্স ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন স্বপন আহমেদ, হাবিবুর রহমান হাবিব, সেলিম আল দ্বীন, রাহাত হোসাইন, মোঃ শামীম, শরীফ আহমেদ, ফয়সল আহমেদ, সালমান আহমেদ আকবর, বেলাল আহমেদ, আব্দুর রাজ্জাক, ছালিক মিয়া,মিতুল মির্জা,সোহাগ মির্জা,মোঃ মাহিদুল ইসলাম নয়ন, ইরশাদ আহমেদ। এছাড়া বক্তব্য রাখেন যুবলীগ নেতা লেবু চৌধুরী, যুক্তরাজ্য ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহানুর রহমান সমুন, ফ্রান্স ছাত্রলীগ নেতা আজির উদ্দিন, সম্রাট প্রমুখ।

Read more

অবৈধভাবে নেয়া ৩ হাজার বাড়ির গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন

Gasগাজীপুরে অবৈধ গ্যাস পাইপ লাইন বিচ্ছিন্নকরণ অভিযানের অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে সন্ধা পর্যন্ত গাজীপুর সদরের বিভিন্ন স্থানে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালিত হয়েছে। গাজীপুর জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ এ অভিযান পরিচালনা করেন।

অভিযানে গাজীপুর সদরের গজারিয়াপাড়া, বাংলাবাজার, রাজেন্দ্রপুর এলাকায় অবৈধভাবে স্থাপিত ১ ইঞ্চি ব্যাসের প্রায় ৩ কিলোমিটার গ্যাস পাইপ লাইন অপসারণ করে গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। এতে প্রায় সাত শত বাড়ীর অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়। এছাড়া বেগমপুর, নয়াপাড়া, হোতাপাড়া এলাকায় অবৈধভাবে স্থাপিত ২ ইঞ্চি ব্যাসের পাইপ লাইনের সংযোগস্থল অপসারণ করে গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। ফলে প্রায় ২ হাজার ৫০০ বাড়ীর অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়।

একই সময়ে হোতাপাড়া বাসষ্ট্যান্ড সংলগ্ন, মোহাম্মদী রেস্তোরা, কুমিল্লা মায়ের দোয়া হোটেল, ভোজন বিলাশ, যমুনা বেকারী ও আদনান টি স্টল এর অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। এসময় নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও গাজীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আশরাফ উদ্দিন হোতাপাড়া এলাকার মোহাম্মদী রেস্তোরা ও কুমিল্লা মায়ের দোয়া হোটেলকে ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা এবং আদনান টি স্টল-কে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। অভিযানের খবর পেয়ে অন্যান্য রোস্তারা ও অবৈধ গ্যাস ব্যবহার কারীরা পালিয়ে যায়।

অভিযান পরিচালনাকালে তিতাস গ্যাস আবিডি-গাজীপুরের মহাব্যবস্থাপক প্রকৌশলী এস.এম. আব্দুল ওয়াদুদ, ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী ছাব্বের আহমেদ চৌধুরী প্রকৌশলী মো. জাহাঙ্গীর আলম, প্রকৌশলী শাবিউল আওয়াল, প্রকৌশলী মো. খোরশেদ আলম, প্রকৌশলী মো. আখেরুজ্জামান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এ ব্যাপারে তিতাস গ্যাসের আবিডি-গাজীপুরের মহাব্যবস্থাপক প্রকৌশলী এস.এম. আব্দুল ওয়াদুদ জানান যারা অবৈধভাবে গ্যাস সংযোগ গ্রহণ করেছেন এবং যারা গ্রামের সাধারণ মানুষকে গ্যাসের প্রলোভন দেখিয়ে অনাকাংক্ষিত ভয়াবহ গ্যাস দুর্ঘটনা দিকে ঠেলে দিয়েছেন তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে এবং এখন থেকে গাজীপুর জেলা প্রশাসনের সহায়তায় নিয়মিতভাবে অবৈধ গ্যাস সংযোগ উচ্ছেদ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

Read more

28 এপ্রিল 2016

জেনে নিন বিবাহিত জীবনে সুখী থাকার মূল মন্ত্র

 dampotto bg20160428163036পারস্পারিক ভালোলাগা থেকে জন্ম নেয় ভালোবাসা। আর ভালোবাসার শুভ পরিণতি বিয়ে। বিয়ে সামাজিক রীতি হলেও এই সম্পর্ক স্থায়ী ও সুখী করতে উদ্যোগী হতে হয় দুজনকেই। 

বিশেষজ্ঞরা বলেন, যদি একজনও সম্পর্কের ক্ষেত্রে নিচের বিষয়গুলো মেনে চলেন, তবে অন্যদের চেয়ে নিজের সম্পর্ককে আলাদা করতে পারবেন। 

 বিবাহিত জীবনকে আরও সুন্দর এবং সুখী হতে যে বিষয়গুলোর চর্চা করতে হবে:

 সততা
সম্পর্কের ক্ষেত্রে মূল স্তম্ভ হচ্ছে সততা। প্রতিটি সম্পর্কের বিষয়ে সততা দেখাতে হবে। একজনকে অন্যজনের অনেক কাছে নিয়ে আসবে যখন সে বলতে পারবে,‘যাই হোক তুমি আমার সম্পর্কে সত্যটাই জানবে’। 

ক্ষমা
একদিনে কোনো সম্পর্ক গড়ে ওঠে না। কোনো ভুল হলে প্রথমেই সম্পর্ক ভেঙ্গে দেওয়ার চিন্তা না করে সংশোধনের সুযোগ দিতে হবে। 
  
বোঝাপড়া
স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে চমৎকার বোঝাপড়া থাকাটা খুব জরুরি। 

 বিশ্বাস 
এমন কিছু কখনো করা যাবে না যাতে করে দু’জনের মধ্যে বিশ্বাস নষ্ট হয়ে যায়। শুধুমাত্র অবিশ্বাসই একটি সম্পর্ক ধ্বংস করে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট।

Like Us!

 সময় কাটানো
একসঙ্গে সময় কাটাতে আগ্রহী হতে হবে। দুজনের একান্ত সময়টুকু আনন্দময় করে তুলতে নতুন নতুন পরিকল্পনা করতে হবে। 

 বন্ধুত্ব
‘বিয়ের আগে আমরা খুব ভালো বন্ধু ছিলাম’। তো, বিয়ের পরে কী হলো? বিয়ের পর সম্পর্কটাকে আরও মজবুত করতে চাই দুজনের নিবিড় বন্ধুত্ব।

ধৈর্য
দাম্পত্য জীবনের পুরো সময়টাই হানিমুন মুডে থাকতে পারবো...এটা ভাবলে বড় ধরনের ধাক্কা খেতে হতে পারে। দুঃসময় আসতে পারে, এমন অবস্থায় ভেঙ্গে না পড়ে ধৈর্য ধরতে হবে।

 এক বিয়েতে বিশ্বাস
এক সঙ্গীর সঙ্গেই সারাজীবন কাটানোর জন্য মনস্থির করতে হবে। 

 মিলন
বিয়ের কিছুদিন পরই অনেকের কাছে সম্পর্ক একঘেঁয়ে মনে হয়। এক্ষেত্রে নিজেদের মাঝে নিয়মিত শারীরিক সম্পর্ক হওয়াটাও কিন্তু দাম্পত্য জীবনে সুখী হওয়ার অন্যতম শর্ত। মিলনে শুধু নিজের নয় সঙ্গীর চাহিদা ও ইচ্ছার বিষয়েও গুরুত্ব দিতে হবে।   

ভালোবাসা 
সব সম্পর্কের মূলে থাকে ভালোবাসা। সঙ্গীর জন্য ভালোবাসা থাকতে হবে এবং সেই ভালোবাসার প্রকাশও করতে হবে।

Read more

সরকারি টাকায় বিলাসিতা: হরিলুটের হিসাব চাইলো সংসদীয় কমিটি

shongsodযানবাহন ক্রয় ও মেরামতের নামে হরিলুট এবং কাজে-অকাজে ঘন ঘন বিদেশ সফর করে সরকারি টাকা অপচয় করছেন কর্মকর্তারা। দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় এবং এর আওতাধীন অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ উঠেছে।

বৈঠকে এ নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন কমিটির সদস্যরা। পরে বিগত ২ বছরে দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের কোন কোন কর্মকর্তা কতবার বিদেশ সফরে গেছেন তার তালিকা আগামী বৈঠকে জমা দিতে বলা হয়েছে। একইসঙ্গে মন্ত্রণালয়/অধিদপ্তরের বিভিন্ন যানবাহনের তালিকা (ব্যবহৃত কর্মকর্তা/কর্মস্থল) প্রস্তুতের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৮ এপ্রিল) দুপুরে জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে কমিটির সভাপতি ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, কমিটির সদস্য দুর্যোগ ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, তালুকদার আব্দুল খালেক, বি.এম মোজাম্মেল হক, আবদুর রহমান বদি, মো. শফিকুল ইসলাম শিমুল ও হেপী বড়ালসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।
 
সংসদ সচিবালয় জানায়, কমিটি ভূমিকম্পসহ অন্যান্য প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলার প্রস্তুতি গ্রহণের বিষয়ে আলোচনা হয়। কমিটি দুর্যোগকালীন প্রয়োজনীয় মুহূর্তে আশ্রয়কেন্দ্রগুলো খোলা রাখার ব্যবস্থা গ্রহণ করতে সংশ্লিষ্ট সবাইকে সচেতন ও দায়িত্বশীল ভূমিকা পালনের সুপারিশ করেছে।

বৈঠকে ব্রিজ/কালভার্ট প্রকল্পের আওতায় দেশের সব এলাকায় সুষমভাবে বরাদ্দের সুপারিশ করা হয়। এসময় নাটোরের সবচেয়ে নীচু এলাকাগুলোকে বিশেষ বরাদ্দের আওতায় আনতে প্রয়োজন অনুযায়ী ব্রিজ/কালভার্ট নির্মাণের ব্যবস্থা গ্রহণ এবং উক্ত এলাকায় আগুনে পুড়ে যাওয়া ঘরবাড়ি এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে টিন বরাদ্দের জন্য বলা হয়।
 
কমিটি এমপিদের বিশেষ বরাদ্দ সমানভাবে প্রদানের সুপারিশ করে। তবে বাস্তবতার নিরিখে প্রয়োজন অনুযায়ী বিশেষ বরাদ্দ বাড়ানো যেতে পারে বলেও মত দিয়েছে কমিটি। মহিলা এমপিদের জন্য বিশেষ বরাদ্দ বাড়ানোর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করা হয়। এছাড়া বৈঠকে বাজার দরের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে টিআর/কাবিখা বরাদ্দ প্রদান অথবা সমপরিমাণ অর্থ বরাদ্দের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়।

Read more