বর্ষ ১ - সংখ্যা ৪৯

সংবাদ শিরোনাম :
শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করন সময়ের দাবী: সিলেটে ত্রান না পাওয়ার অভিযোগ করায় অভিযোগকারিকে আওয়ামীলীগ নেতার মারধর: ইউএনও’র বিরুদ্ধে মামলা প্রভাবশালীদের ইন্ধনে!: আন্তর্জাতিক পাবলিক সার্ভিস দিবস আজ: গাজীপুর আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা: কালীগঞ্জে অসহায় গ্রামবাসীকে বিনামূল্যে চিকিৎসা ও ওষুধ প্রদান: বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক ঘুরে দেখলেন সজিব ওয়াজেদ জয়: বিএনপির সদস্য হতে নারী ও তরুণদের ব্যাপক আগ্রহ: ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ নিয়ে সমালোচনায় ট্রাম্প: ইরানের পরমাণু সমঝোতা বাস্তবায়ন করুন : চীন: মার্চেই প্রাথমিকে ১৭ হাজার শিক্ষক নিয়োগ : গাজীপুরে অস্ত্র ও গুলিসহ ৬ ডাকাত আটক: গাজীপুর আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে আ.লীগ প্যানেল জয়ী: গাজীপুরের শ্রীপুরে সড়কে গর্ত ও ধুলায় জনদুর্ভোগ চরমে: গাজীপুরের ‘জাগ্রত চৌরঙ্গী’ এখন মূত্রত্যাগীদের পাবলিক টয়লেট !!:
A+ A A-

এটিএম বুথে কার্ড জালিয়াতির হোতা গ্রেপ্তার

atm boothব্যাংকের এটিএম বুথে কার্ড জালিয়াতির সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে পিওটার সিজোফেন মাজুরেক (ছদ্মনাম থমাস পিটার) নামে এক বিদেশি নাগরিককে গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। একই ঘটনায় সিটি ব্যাংকের আরও তিন কর্মকর্তাকে আটক করা হয়েছে। পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার মো. শাহজাহানের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

গোয়েন্দা পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, পিওটরের জন্মস্থান ইউক্রেন। তিনি জার্মানির নাগরিক। থমাস পিটার নামে তাঁর পোল্যান্ডের পাসপোর্ট রয়েছে। আটক হওয়া তিন ব্যাংক কর্মকর্তা হলেন, মকসেদ আলম ওরফে মাকসুদ, রেজাউল করিম ও রেফাজ আহমেদ। তারা ব্যাংকের কার্ড ডিভিশনে কর্মরত।

আজ সোমবার ঢাকা মহানগর পুলিশের মিডিয়া সেন্টারে অনুষ্ঠিত সংবাদ ব্রিফিংয়ে এসব কথা জানান নবগঠিত কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের প্রধান ডিআইজি মনিরুল ইসলাম।

মনিরুল ইসলাম বলেন, গতকাল রোববার রাতে রাজধানীর গুলশানে পিওটরের নিজ বাসা ও বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে চারজনকে গ্রেফতার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পিওটর বলেন, দীর্ঘদিন ধরে তারা এই জালিয়াতির কাজের সঙ্গে জড়িত। তাঁর সঙ্গে এ কাজে আরও জড়িত আছেন লন্ডনপ্রবাসী এক বাংলাদেশি, বুলগেরিয়ার এক নাগরিক ও ইউক্রেনের এক নাগরিক। তাদের সঙ্গে সিটি ব্যাংকের কার্ড ডিভিশনের গ্রেফতার তিন কর্মকর্তারও যোগসাজশ রয়েছে।

ব্রিফিংয়ে আরও জানানো হয় পিওটর পুলিশকে বলেছেন, তিনি এক বছর আগে বিজনেস ভিসা নিয়ে বাংলাদেশে আসেন। কিছুদিন আগে ভিসার মেয়াদ শেষ হয়। তারা বাংলাদেশে অবস্থানরত বিদেশি নাগরিকদের কাছ থেকে এর আগে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। এটিএম বুথ থেকে তারা শত শত কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়। পরে বাংলাদেশিদের এটিএম বুথ থেকে টাকা জালিয়াতির কাজ শুরু করে। সিটি ব্যাংকের তিন কর্মকর্তার কাছে থাকা পাঞ্চ মেশিন তাঁদের এ কাজে সহায়তা করে। এ ঘটনার জন্য পিওটর ‘অনুতপ্ত’ বলে জানিয়েছেন।

এই চক্রের সঙ্গে অন্য ব্যাংকের আরও কয়েকজন জড়িত বলে ডিবি জানিয়েছে। এগুলো খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

ডিবি বলছে, এটিএম বুথের কার্ড জালিয়াতির চক্রগুলো মূলত পূর্ব ইউরোপের রোমানিয়া, বুলগেরিয়া, ইউক্রেন ও পোল্যান্ডভিত্তিক। এরা ইউরোপ, আফ্রিকাসহ এশিয়ার বিভিন্ন দেশে তৎপর। গ্রেফতার ব্যক্তিদের ১০ দিনের রিমান্ড চাইবে ডিবি।

পিওটর গুলশানে থাকেন। ঢাকায় থেকে যাওয়ার জন্য বাংলাদেশি এক হোটেল কর্মচারীকে বিয়ে করে বহাল-তবিয়তে তিনি সংসার পেতে বসেছেন। গেল সপ্তাহে তিনি পুত্র সন্তানের বাবা হয়েছেন।

এ মাসের প্রথম সপ্তাহে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় বেসরকারি ইস্টার্ন, সিটি ও ইউসিবিএল ব্যাংকের এটিএম বুথ থেকে অন্তত ২০ লাখ টাকা তুলে নেয় চক্রটি। টাকা হাতিয়ে নিতে তারা স্কিমিং ডিভাইস বসিয়ে গ্রাহকদের গোপন তথ্য চুরি করে। এরপর ঘটনার শিকার গ্রাহকেরা ছাড়াও সংশ্লিষ্ট ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক লিমিটেড (ইউসিবিএল), সিটি ব্যাংক ও ইস্টার্ন ব্যাংক কর্তৃপক্ষের টনক নড়ে। এই সেক্টরের কড়া নিরাপত্তা সুরক্ষায় বাংলাদেশ ব্যাংকও দ্রুত এগিয়ে আসে। মাঠে নামে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।